আনন্দ ভ্রমণে এক ফ্রেমে হায়াত পরিবার

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:২০ এএম, ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭

ঢাকার শোবিজে একটি পরিবারেই রয়েছে তারকার ছড়াছড়ি। সেই পরিবারের নাম হায়াত পরিবার। যেখানে আবুল হায়াত, তার দুই কন্যা বিপাশা হায়াত, নাতাশা হায়াত ও দুই জামাতা তৌকীর আহমেদ ও শাহেদ শরীফ খান দেশের স্বনামধন্য অভিনয়শিল্পী।

সচরাচর তাদেরকে একসঙ্গে দেখা যায় না। কিন্তু সম্প্রতি ঈদ উপলক্ষে অবকাশ কাটাতে পুরো পরিবার নিয়ে মালয়েশিয়াতে পাড়ি দিয়েছেন আবুল হায়াত। সেখানে দৃষ্টিনন্দন নানা স্থানে তিনি ঘুরে বেড়াচ্ছেন স্ত্রী-কন্যা ও নাতিদের নিয়ে।

সেখানে দুই কন্যা ও দুই জামাতা ছাড়াও আবুল হায়াতের সঙ্গী তার স্ত্রী শিরিন হায়াত, , শাহেদ-নাতাশার মেয়ে ও ছেলে, তৌকীর-বিপাশার ছেলে। কোরবানি ঈদের ছুটিতে সবাই মিলে বেড়াতে গেছেন মালয়েশিয়ায়।

গুণী অভিনেতা আবুল হায়াত এবং শিরিন হায়াত দম্পতির দুই মেয়ে বিপাশা হায়াত ও নাতাশা হায়াত, বিপাশা স্বামী তৌকীর আহমেদ, নাতাশার স্বামী শাহেদ শরীফ খান এবং তৌকীর-বিপাশা ও শাহেদ-নাতাশা দম্পতির ছেলেমেয়েরা এখন একসঙ্গে।

গেল রোববার (৩ সেপ্টেম্বর) সকালে ক্লিয়াটু ডমেস্টিক ডিপারচার্স গেট জেঅ্যান্ডকে থেকে নাতাশা তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে জানান, তখন তারা রওনা দিচ্ছেন মালয়েশিয়ার পেনাং শহরের উদ্দেশ্যে। এর কয়েক ঘণ্টা পর শাহেদ তার ফেসবুকে পোস্ট করেছেন পেনাংয়ের জেলাটংয়ে অ্যারাবিকা এস্টেট পারসিয়ারান কারপাল নামের একটি রেস্তোরাঁয় পুরো পরিবারের একসঙ্গে খাওয়ার সেলফি।

নাতাশা আরও কয়েকটি ছবি শেয়ার দিয়েছেন। যেখানে তাদের দেখা গেছে, মালয়েশিয়ার ত্রিমাত্রিক আর্ট মিউজিয়ামে কৃত্রিম নৌকায় বসে আছে পুরো হায়াত পরিবার। সারাবছর শুটিং, সংসার কিংবা ছেলেমেয়েদের স্কুল নিয়ে তাদের সবাইকে ব্যস্ত থাকতে হয়। এই আনন্দ ভ্রমণ সেই ক্লান্তি দূর করে দেবে তাতে আর সন্দেহ নেই।

এদিকে ঈদুল আজহা উপলক্ষে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে তৌকীর আহমেদ পরিচালিত ও অভিনীত এবং আবুল হায়াত অভিনীত নাটক-টেলিছবি। পাশাপাশি তৌকীর আহমেদের পরিচালনায় ‌‘হালদা’ নামের চলচ্চিত্রটি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

এলএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]