‘মিশন এক্সট্রিম’ সিনেমাতে যুক্ত হলেন তাসকিন রহমান

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৪৬ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০১৯

আরেফিন শুভ’র পর এবার ‘মিশন এক্সট্রিম’ সিনেমাতে যুক্ত হলেন তাসকিন রহমান। সিনেমাটির প্রধান খলনায়ক চরিত্রে অভিনয়ের জন্য সম্প্রতি চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। এ বছরের মার্চ মাস থেকে শুরু হবে শুটিং। ‘মিশন এক্সট্রিম’ সিনেমাটি প্রযোজনা করছেন ‘কপ ক্রিয়েশন’। এটি হবে বাংলাদেশের দ্বিতীয় পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা।

‘কপ ক্রিয়েশন’ সূত্রে জানা গেছে, ক্রাইম, থ্রিল, সাসপেন্স এবং অ্যাকশন নির্ভর একটি মৌলিক গল্পের উপর ভিত্তি করে সিনেমাটি নির্মিত হচ্ছে। তাসকিন রহমানকে এই সিনেমাতে একটি ভিন্নধর্মী চরিত্রে দেখা যাবে। তাকে এই চরিত্রের জন্য প্রস্তুত করার লক্ষ্যে কয়েক সপ্তাহব্যাপী মনস্তাত্ত্বিক এবং শারীরিক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। ‘ঢাকা অ্যাটাক’ সিনেমার মত এই সিনেমাতেও তাকে খলনায়ক চরিত্রে দেখা গেলেও এবারের চরিত্রটি অনেক বেশী চ্যালেঞ্জিং।

‘মিশন এক্সট্রিম’ প্রসঙ্গে তাসকিন বলেন, ‘ঢাকা অ্যাটাক’র পর আবারও খল-চরিত্রে অভিনয় করতে যাচ্ছি। বিষয়টি বেশ আনন্দের। আমি সবসময় ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করতে পছন্দ করি। এবারও এর ব্যতিক্রম ঘটছে না। বর্তমানে নতুন সিনেমার জন্য নিজেকে ভিন্নভাবে প্রস্তুত করছি। দারুণ একটি জার্নি আমার জন্য অপেক্ষা করছি।’

সিনেমার কাহিনী, চিত্রনাট্য এবং সংলাপ লিখেছেন সানী সানোয়ার। সিনেমাটি পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তথা ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ’সিটিটিসি’র কিছু শ্বাসরুদ্ধকর কয়েকটি অভিযান থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে। সিনেমাটির কাহিনীকার সানী সানোয়ার (পুলিশ সুপার, বাংলাদেশ পুলিশ) স্পেশাল পুলিশ ফোর্সের একজন অভিজ্ঞ সদস্য। তিনি তার পেশাগত (বাস্তব) জীবনের কিছু অভিজ্ঞতা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে সিনেমার কাহিনী লিখেছেন। সানী সানোয়ার বলেন, ‘সিনেমাটিতে আমাদের নিজস্ব সংস্কৃতি এবং সামাজিক বাস্তবতার যথাযথভাবে প্রতিফলন ঘটবে বলে আমাদের বিশ্বাস ‘

উল্লেখ্য যে, ২০১৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশের প্রথম পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা ’ঢাকা অ্যাটাক’-এর কাহিনীকারও ছিলেন তিনি। সিনেমাটি ব্যাপকভাবে আলোচিত হয় এবং সবশ্রেণীর দর্শক কর্তৃক নন্দিত হয়। আর, ‘মিশন এক্সট্রিম’ হতে যাচ্ছে ‘ঢাকা অ্যাটাক’টিমের দ্বিতীয় সিনেমা।

‘মিশন এক্সট্রিম’ পরিচালনা করবেন ফয়সাল আহমেদ। তিনি ’ঢাকা অ্যাটাক’ সিনেমায় প্রধান সহকারী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০১৯ সালের মাঝামাঝি সময়ে সিনেমাটি মুক্তি দেয়া হবে। পরবর্তীতে সিনেমাটির অন্যান্য তথ্য এবং গুরুত্বপূর্ণ কলাকুলশলীদের নাম পর্যায়ক্রমে জানানো হবে।

এলএ/এমএবি/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]