বঁটি নিয়ে গৃহকর্মীর মাথায় কোপ মারতে যান চিত্রনায়িকা একা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৫৪ পিএম, ০১ আগস্ট ২০২১

গৃহকর্মী হাজেরা বেগম তিন মাস ধরে চিত্রনায়িকা একার বাসায় কাজ করতেন। গৃহকর্মী হাজেরা তার বকেয়া বেতন চাইলে আসামি একা ঘর থেকে বের হয়ে তাকে ধাক্কা দেন। তখন গৃহকর্মী টাকা না দিলে যাবেন না বললে তাকে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করেন একা। এ সময় গৃহকর্মী হাজেরা রুম থেকে বের না হওয়ায় আসামি একা দৌড়ে রান্না ঘর থেকে বঁটি এনে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় কোপ মারতে যান।

রোববার (১ আগস্ট) আসামিকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর হাতিরঝিল থানায় হত্যার উদ্দেশ্যে মারধর ও মাদকদ্রব্য আইনে করা পৃথক দুই মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তাকে তিন দিন করে ছয় দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করে পুলিশ।

হত্যার উদ্দেশ্যে মারধরের ঘটনায় করা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হাতিরঝিল থানার উপ-পরিদর্শক ফয়সাল রিমান্ড আবেদনে বলেন, ‘গৃহকর্মী তিন মাস ধরে অভিনেত্রী একার বাসায় কাজ করতেন। প্রথম মাসের বেতন তিন হাজার টাকা দিলেও গত দুই মাসের বেতন একসঙ্গে চাইতে গেলে অভিনেত্রী একা তাকে আর কাজ করাবেন না বলে জানান। তখন ভুক্তভোগী গৃহকর্মী হাজেরা বেগম বকেয়া বেতন চাইলে আসামি একা ঘর থেকে বের হয়ে গৃহকর্মীকে ধাক্কা দেন।’

রিমান্ড আবেদনে তিনি আরও বলেন, ‘তখন গৃহকর্মী টাকা না দিলে যাবেন না বললে তাকে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করেন একা। এ সময় গৃহকর্মী রুম থেকে বের না হওয়ায় আসামি একা দৌড়ে রান্না ঘর থেকে বঁটি এনে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় কোপ মারতে যান। তখন গৃহকর্মী হাত দিয়ে ঠেকাতে গেলে তার হাত মারাত্মকভাবে জখম হয়। এ সময় চিকিৎসার জন্য তাকে ঢামেকে ভর্তি করা হয়। এ মামলার আসল রহস্য উদ্ঘাটনের জন্য আসামির তিন দিনের রিমান্ডে নেয়া প্রয়োজন।’

এর আগে শনিবার তার বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) হাতিরঝিল থানায় দুটি মামলা হয়েছে। নির্যাতনের অভিযোগে গৃহকর্মী বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। অন্য মামলাটি একার বাসায় মাদক পাওয়ার অভিযোগে পুলিশ বাদী হয়ে করেছে।

এদিন সন্ধ্যায় গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে চিত্রনায়িকা একাকে আটক করে হাতিরঝিল থানা পুলিশ। এ সময় তার বাসা থেকে পাঁচ পিস ইয়াবা, পঞ্চাশ গ্রাম গাঁজা এবং অর্ধেক বোতল কেরু মদ জব্দ করা হয়।

জানা গেছে, এক গৃহকর্মী একার বাসায় তিন মাস ধরে কাজ করেন। এক মাসের বেতন দিলেও দুই মাসের বকেয়া বেতন চাইতে গেলে ইট দিয়ে আঘাত করে গৃহকর্মীকে আহত করেন নায়িকা একা।

শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ওই গৃহকর্মী থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

আহত গৃহকর্মীর দেবর আজিজুল ইসলাম বলেন, ‘আমার ভাবি তিন মাস ধরে নায়িকা একার বাসায় কাজ করতেন। প্রথমে তার বেতন তিন হাজার টাকা হলেও পরবর্তীতে কাজ বেড়ে যাওয়ায় পাঁচ হাজার টাকা ঠিক হয়। প্রথম মাসের বেতন তিন হাজার টাকা দিলেও গত দুই মাসের বেতন একসঙ্গে চাইতে গেলে নায়িকা একা ভাবিকে ইট দিয়ে আঘাত করে আহত করেন। এরপর সন্ধ্যার দিকে তাকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।’

আহত গৃহকর্মীর গ্রামের বাড়ি শেরপুর সদরের হরিণধরা গ্রামে। তার স্বামীর নাম রফিক। বর্তমানে রাজধানীর পূর্ব উলুন রামপুরা বন্ধু নিবাস এলাকায় থাকতেন তারা।

হাতিরঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রশিদ বলেন, ‘৯৯৯ থেকে ফোন পেয়ে পুলিশের মোবাইল টিমের সদস্যরা সেখানে গিয়ে দেখে, ওই গৃহকর্মী বাসার নিচে বসে কান্নাকাটি করছেন। এলাকার লোকজন বাসা ঘেরাও করে রেখেছে। পুলিশ দরজা ভেঙে একার বাসায় ঢোকে। প্রায় তিন মাস ধরে ওই বাসায় কাজ করতেন গৃহকর্মী। বকেয়া বেতন দেয়া নিয়ে তাকে মারধর করা হয়েছে। তার হাতে, পায়ে, মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।’

জেএ/এআরএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]