টয়লেটের ফ্ল্যাশে দু’টি বাটন থাকে কেন?

ফিচার ডেস্ক
ফিচার ডেস্ক ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৪০ পিএম, ১৮ জুন ২০১৯

আধুনিক জীবনযাত্রায় অনেক কিছুতেই পরিবর্তন এসেছে। তারমধ্যে আধুনিক টয়লেটে ফ্ল্যাশের ব্যবস্থাও উল্লেখযোগ্য। প্রয়োজনীয় কাজ শেষে সবাই ফ্ল্যাশের বাটনে চাপ দেন। ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার হয়ে যায়। কিন্তু কখনো কি খেয়াল করেছেন, সেই ফ্ল্যাশে দু’টি বাটন রয়েছে? কেন দু’টি বাটন রাখা হয়েছে, তা হয়তো অনেকের জানা নেই। আসুন তাহলে জেনে নেই-

কেউ হয়তো কাজ সেরে সঠিকভাবে টয়লেট পরিষ্কার রাখল না। আবার কেউ এতোই পানি ব্যবহার করল যে, তাকে অপচয়ই বলা যায়। সেই বদ অভ্যাস ও অপচয় রোধের জন্যই ফ্ল্যাশের ব্যবস্থা করা হয়। যদিও আগে টয়লেটের ফ্ল্যাশে থাকত টানা দড়ি। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে হ্যান্ডেল থেকে তা চলে এসেছে বাটনে। ফলে আধুনিক টয়লেটের ফ্ল্যাশ হিসেবে দু’টি বাটন রাখা হয়।

flash-cover.jpg

> আরও পড়ুন- স্বপ্নে নারীকে দেখলে কী হতে পারে?

যেহেতু জনসংখ্যার ক্রমবর্ধমান হারের কারণে দিন দিন বাড়ছে পানির চাহিদা। অথচ চাহিদা বাড়লেও দিন দিন কমে আসছে ব্যবহার্য পানির পরিমাণ। তাই শৌচকার্যে পানির অপচয় রুখতে এ বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়। সেখান থেকেই দু’টি বাটনের পরিকল্পনা আসে ফ্ল্যাশ নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর মাথায়।

একটি বড় ফ্ল্যাশে সাধারণত ৬ থেকে ৭ লিটার পানি খরচ হয়। আগে যে কোন ফ্ল্যাশে ঠিক এ পরিমাণই পানি খরচ হতো। আর ছোট ফ্ল্যাশে খরচ হয় ৩ থেকে সাড়ে ৪ লিটার পানি। ফলে বড় কোন প্রয়োজন ছাড়া বড় ফ্ল্যাশ না চাপাই ভালো। সে ক্ষেত্রে ছোট বাটনটি চাপা বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

flash-cover.jpg

> আরও পড়ুন- মেয়েরা হেড ফোন বেশি ব্যবহার করে

তাই আমাদের টয়লেট ব্যবহারের নিয়ম-কানুন জেনে রাখা দরকার। একটু সচেতন হলেই অনেক অপ্রীতিকর পরিস্থিতি বা অপচয় এড়িয়ে যাওয়া যায়। যদিও অনেক দেশে টিস্যু পেপার দিয়েই কাজ শেষ করা হয়। আবার কোন কোন ফ্ল্যাশে বাটন একটিই থাকে। সেসব ক্ষেত্রে বিষয়টি আলাদা।

এসইউ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]