গোপনে অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে মামলা করেছে যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:১১ পিএম, ১৬ নভেম্বর ২০১৮

তথাকথিত গণমাধ্যম ধারার বাইরে এসে বিশ্বজুড়ে সাড়া জাগানো সংবাদমাধ্যম উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যে অ্যাসাঞ্জের বিুরদ্ধে গোপনে যুক্তরাষ্ট্র এই অভিযোগ গঠন করেছে বলে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদেন জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার আদালতে পাওয়া এক নতুন নথির বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। তবে বিচার বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, ভুল করেই তারা অ্যাসাঞ্জের নামে ওই অভিযোগ গঠন করেছে। নথিতে অভিযুক্তের বদলে ভুলেই অ্যাসাঞ্জের নাম ঢুকে গেছে বলে জানানা তারা।

যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগ আনার পর ২০১২ সাল থেকে লন্ডনে ইকুয়েডরের দূতাবাসে রাজনৈতিক আশ্রয়ে আছেন অ্যাসাঞ্জ। মূলত যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তাকে হস্তান্তর করা হবে এমন আশঙ্কায় সেখান থেকে বোরোতে পারছেন না তিনি। তবে কি নিয়ে তার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র অভিযোগ গঠন করেছে তা এখনও স্পষ্ট হওয়া যায়নি।

আদালতে যে অভিযোগটি দাখিল করা হয়েছে তার সঙ্গে অ্যাসাঞ্জের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই বলে জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স। উইকিলিকসের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, মার্কিন বিচার বিভাগ দুর্ঘটনাবশত উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে অভিযোগের যে নথিটি প্রকাশ করেছে তা সম্ভবত ‘কাট অ্যান্ড পেস্টে’র ভুল।

তবে অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের নথি প্রকাশ হয়ে পড়া নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি মার্কিন কর্মকর্তারা। শুধু প্রসিকিউটর কার্যালয়ের মুখপাত্র জসুয়া স্টুয়েভ রয়টার্সকে বলেছেন, ভুল করে আদালতে নথি দাখিল করা হয়েছে। এই অভিযোগ দাখিল করার কথা ছিল না।

যুক্তরাষ্ট্রের লাখ লাখ সামরিক ও কূটনৈতিক নথি ফাঁস করে দিয়ে বিশ্বজুড়ে হইচই ফেলে দেওয়া উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা অ্যাসাঞ্জ আগে থেকেই তার বিরুদ্ধে গোপন মামলা আছে বলে অভিযোগ করে আসছিলেন। সে কারণেই জামিনের শর্ত ভঙ্গ করে ছয় বছর আগে তিনি লন্ডনের একুয়েডর দূতাবাসে আশ্রয় চান।

এসএ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :