ট্রাম্পকে নিজের বাবা দাবি পাকিস্তানি এক তরুণীর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:০৪ এএম, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮

পাকিস্তানে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ে রয়েছেন। দেশটির লাহোরের বাসিন্দা আম্মারা মাজহার নামের এক তরুণী এ দাবি করেছেন। তার দাবি তিনি নিজেই ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ে। পালিত বা অবৈধ নয়। ট্রাম্পের বিয়ে করা স্ত্রীর গর্ভজাত সন্তান। পাকিস্তানের একাধিক সংবাদ মাধ্যমে এমন তথ্য জানানো হয়েছে।

ওই তরুণীর দাবি, তিনি যুক্তরাষ্ট্রেই জন্মেছিলেন এবং ওই দেশেই তার শৈশব কেটেছে। পরে অপহরণ করে তাকে পাকিস্তানে নিয়ে আসা হয়। এরপর থেকে তিনি লাহোরে অবস্থান করছেন।

নিজের প্রতি সুবিচার পেতে এবং নিজের দেশ আমেরিকায় ফিরে যাওয়ার জন্য আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন আম্মারা মাজহার। আবেদন করেছেন লাহোর হাইকোর্টে। প্রয়োজনে পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্টেও যাবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘আমার মা ইভানা, আমার প্রতি খুব উদাসীন ছিলেন। এ নিয়ে বাবা আমার মা’কে বকাবকি করতেন। মায়ের উদাসীনতার কারণেই আমায় অপহরণ করতে সক্ষম হয় অপহরণকারীরা।’

এদিকে আম্মারা মাজহারের দাবিকে গুরুত্ব দিয়েছে আদালত। মামলা গ্রহণ করেছে লাহোর হাইকোর্ট। তবে পাকিস্তানের এক চিকিৎসক ওই তরুণীর দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন। তার কথায়, ‘মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ার কারণেই ভুল বকছেন ওই মেয়ে। তার মস্তিষ্ক পাকিস্তানের বাইরে নানা জায়গায় ঘুরছে। সেখানে অনেক ভাবনা-চিন্তা রয়েছে যেগুলোর মধ্যে কোনো মিল নেই। তেমনই একটি মায়া হচ্ছে তার বাবা ডোনাল্ড ট্রাম্প।’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তিনটি বিয়ে করেছে। ইভানা ট্রাম্প তার প্রথম স্ত্রী। ইভানার সঙ্গেই সব চেয়ে বেশি সময় দাম্পত্য জীবন কাটিয়েছেন তিনি। ১৯৭৭ সালে তারা বিয়ে করেন এবং ১৯৯২ সালে ভেঙে যায়।

১৯৯৩ সালে মারলা মাপেলস নামক এক নারীকে বিয়ে করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ১৯৯৯ সালে তাও ভেঙে যায়। সর্বশেষ ২০০৫ সালে জনপ্রিয় মডেল মেলানিয়া ট্রাম্পকে বিয়ে করেন ট্রাম্প।

আরএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :