পাকিস্তান কোনো ক্ষতি করতে পারেনি : ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৫৪ পিএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

আকাশসীমা লঙ্ঘন করে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে পাকিস্তানি বিমান অনুপ্রবেশ করে বোমা ফেললেও কোনো ধরনের ক্ষয়ক্ষতি করতে পারেনি বলে দাবি করেছে ভারতীয় বিমানবাহিনী। বৃহস্পতিবার দেশটির বিমানবাহিনীর প্রধান এই দাবি করেছেন।

পাক-ভারত চলমান উত্তেজনা নিয়ে বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমের কাছে ব্রিফিং করেছেন ভারতের সশস্ত্র তিন বাহিনীর প্রধান। সন্ধ্যার দিকে তারা গণমাধ্যমের সঙ্গে চলমান উত্তেজনা, আকাশসীমা লঙ্ঘন, যুদ্ধবিমান ভূপাতিত ও ক্ষয়ক্ষতির তথ্য তুলে ধরেন।

এ সময় ভারতের বিমান বাহিনীর প্রধান এয়ার ভাইস মার্শাল আর জি কে কাপুর বলেন, পাকিস্তানি বিমানের অনুপ্রবেশ ঠেকানোর দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল ভারতীয় বিমানবাহিনীর যোদ্ধাদের এবং তারা অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সক্ষম হয়েছে। যদিও পাকিস্তানি বিমান কাশ্মীরে বোমা ফেলেছে, কিন্তু তারা কোনো ক্ষয়ক্ষতি করতে পারেনি।

বুধবার পাক বিমানবাহিনীর বিমান হামলার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, পাকিস্তানি বিমানবাহিনী ভারতে প্রবেশের পর সামরিক স্থাপনা টার্গেট করেছে, এতে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু সেই লক্ষ্য ভ্রষ্ট হয়েছে।

সীমান্ত রেখার কাছে পাকিস্তানি বিমানবাহিনীর যুদ্ধবিমান এফ-১৬ থেকে ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রের ধ্বংসাবশেষের আলামত সাংবাদিকদের দেখিয়েছেন ভারতের তিন বাহিনীর প্রধানরা। কাপুর বলেন, ভারতীয় বিমান বাহিনীর মিগ-২১ থেকে গুলি চালিয়ে পাকিস্তানি একটি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ভারতের ভূখণ্ডে ভূপাতিত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বালাকোটে জঙ্গিগোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদের ঘাঁটিতে হামলা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ভারতীয় বিমান বাহিনীর এই প্রধান বলেন, ভারতের বিমান হামলায় ঠিক কতজন মারা গেছে, তা এই মুহূর্তে বলা সম্ভব নয়। তবে যাই হোক না কেন আমরা জয়েশের ঘাঁটি ধ্বংস করতে চেয়েছিলাম এবং এটাতে সফল হয়েছি।

সেনাবাহিনীর মেজর জেনারেল সুরেন্দ্র সিং মহল বলেন, পাকিস্তান যতোদিন সন্ত্রাসীদের আশ্রয় দেবে, আমরা ততোদিন সন্ত্রাসীদের ঘাঁটিকে টার্গেট করবো।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় কেন্দ্রীয় আধা-সামরিক বাহিনীর (সিআরপিএফ) গাড়ি বহরে জঙ্গি হামলায় ৪০ জওয়ানের প্রাণহানি ঘটে। এ ঘটনার দায় স্বীকার করে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদ। মঙ্গলবার পুলওয়ামা হামলার জবাবে পাক-অধিকৃত কাশ্মীরে জয়েশের ঘাঁটিতে ভারতীয় বিমানবাহিনী অভিযান চালিয়ে ৩০০ জঙ্গিকে হত্যার দাবি করে ভারত। এই অভিযানের একদিন পর বুধবার দুই দেশের আকাশসীমায় পাল্টাপাল্টি বিমান অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটে।

পাকিস্তান বলছে, তারা ভারতীয় বিমানবাহিনীর দুটি বিমান ভূপাতিত এবং একজন পাইলটকে আটক করেছে। ভারতের দাবি, তারাও পাকিস্তানের একটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করেছে। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে জানায়, পাকিস্তানি অনুপ্রবেশ ঠেকানোর সময় ভারতীয় একটি মিগ-২১ যুদ্ধবিমান ও পাইলট নিখোঁজ হয়েছে।

ইসলামাবাদে আটক ভারতীয় পাইলটকে শুক্রবার মুক্তি দেয়া হবে বলে পাকিস্তানের পার্লামেন্টে জরুরি এক অধিবেশনে ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তার এই ঘোষণার পর ভারতীয় বিমানবাহিনী বলছে, পাইলট অভিনন্দন বর্তমানের মুক্তি জেনেভা কনভেনশনের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।

এসআইএস/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :