ডুবেছে বন, প্রাণ বাঁচাতে ঘরে ঢুকে বিছানা দখলে নিলেন বাঘ মামা!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৫৬ পিএম, ১৮ জুলাই ২০১৯

বন্যা-বিধ্বস্ত ভারতের আসাম প্রদেশে শত শত মানুষ গৃহহীন হয়েছেন। বন্যার পানিতে ডুবে প্রাণ গেছে আসামের কাজিরাঙা জাতীয় উদ্যানের অনেক পশুর। ঠিক তখনই টুইটারে ঠিক এর বিপরীত ছবি দেখে অনেকেই বাকরুদ্ধ হয়েছেন। বৃহস্পতিবার টুইটারে কাজিরাঙা হাইওয়ের পাশের এক বাড়িতে প্রাণ বাঁচাতে ঢুকে পড়ে একটি বাঘ!

শুধু ঢোকা নয়, বাড়ির কর্তার মতো সেই বাড়ির বিছানাটিও এখন তার দখলে। দিব্যি আয়েশ করে সেখানে ক্লান্ত শরীর এলিয়ে বিশ্রাম নিচ্ছে বাঘটি।

ওই বাড়ির একটি গর্তের মধ্যে দিয়ে ছবিটি তোলা হয়েছে। ভারতের বন্যপ্রাণী সুরক্ষা দফতরের শেয়ার করা ছবিতে দেখা যাচ্ছে, স্রোতের বিরুদ্ধে সাতার কাটতে কাটতে ক্ষুধার্ত, ক্লান্ত রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারটি আপাতত আরামেই রয়েছে বাড়ির ভেতর।

আরও পড়ুন : খোলা জানালার পাশে দৈহিক সম্পর্ক, ১০তলা থেকে মাটিতে দম্পতি

বাড়িতে বাঘ ঢুকতে দেখে বাড়ির মালিকের প্রাণ যায় যায় দশা। প্রতিবেশিরাও দৃশ্য দেখে হাউমাউ করে চিৎকার জুড়ে দিয়েছিলেন। তাদের সবাইকেই শান্ত এবং সজাগ থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। বন দফতর বলছে, ঘুম পাড়িয়ে বাঘটিকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।

আসামের ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন প্রায় ৫২ লাখ মানুষ। বন্যার পানিতে ডুবে প্রাণ গেছে অন্তত ২০ জনের। বন্যা বিধ্বস্ত আসামে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। রাজ্যের যোগাযোগ ব্যবস্থাও ভেঙে পড়েছে।

আরও পড়ুন : বিল গেটসকে টপকালেন বার্নার্ড

আসামের বন দফতর বলছে, জাতীয় উদ্যানের প্রায় ৯৫ শতাংশ পানির নিচে তলিয়ে গেছে। ভেসে গেছে উদ্যানের অন্যতম সম্পদ একশৃঙ্গ গন্ডার। এক সপ্তাহে মারা গেছে ৩০টি পশু। বেশ কিছু পশু ভেসেও গেছে। তবে জাতীয় উদ্যান থেকে বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে।

আসামের কাজিরাঙা জাতীয় উদ্যানের উত্তরে ব্রহ্মপুত্র নদ। দক্ষিণে উচ্চভূমি। দুই বছর আগে এমনই এক ভয়াবহ বন্যায় উদ্যানের ৩৬০টি পশুর মধ্যে মারা যায় ৩১টি। সেই তালিকায় ছিল একশৃঙ্গ গন্ডার ও রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার।

সূত্র : এনডিটিভি।

এসআইএস/এমকেএইচ