মাদাম তুসো থেকে সরানো হলো হ্যারি-মেগানকে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৩৭ পিএম, ১০ জানুয়ারি ২০২০

লন্ডনের মাদাম তুসো মিউজিয়াম থেকে প্রিন্স হ্যারি এবং মেগান মারকেলের মোমের মূর্তি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। ব্রিটেনের রাজ পরিবারের ‘সিনিয়র’ সদস্যের খেতাব ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই মাদাম তুসোর রাজপরিবারের সদস্যদের মোমের মূর্তি থেকে প্রিন্স হ্যারি ও মেগানের মূর্তি সরিয়ে ফেলা হয়। ওই মূর্তি দুটি মিউজিয়ামের অন্য কোথাও বসানো হবে বলে জানানো হয়েছে।

মাত্র একদিন আগেই নিজেদের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে প্রিন্স হ্যারি ও মেগান ঘোষণা করেন যে, ব্রিটিশ রাজপরিবারের সদস্য বা ‘সিনিয়র রয়্যালস’ হিসেবে যে খেতাব ছিল তারা তা আর ব্যবহার করবেন না। তবে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের বিভিন্ন কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকবেন বলে জানিয়েছেন তারা।

এক বিবৃতিতেই হ্যারি ও মেগান বলেন, এবার থেকে ব্রিটেন এবং উত্তর আমেরিকা দু’জায়গাতেই ভাগ করে থাকবেন তারা। মেগান বলছেন, ‘দু’টি ভৌগোলিক অবস্থানে আমাদের ছেলে আর্চি বেড়ে উঠলে একই সঙ্গে ব্রিটিশ রাজপরিবারের ঐতিহ্য এবং সাধারণ মানুষের জীবনযাপন সম্পর্কে তার ধারণা জন্মাবে।

তারা বলেন, রাজপরিবারের আর্থিক সুযোগসুবিধা ছেড়ে সাধারণ মানুষের মতো উপার্জনের চেষ্টা চালাবেন তারা। তবে তারা কীভাবে জীবনযাপন করবেন সে বিষয়ে স্পষ্ট কিছু জানাননি। এক সময়ের জনপ্রিয় মার্কিন অভিনেত্রী মেগান আবারও বিনোদন জগতে ফেরার কথা ভাবছেন কীনা তাও পরিষ্কার নয়।

বাকিংহাম প্রাসাদের একটি সূত্র বলছে, হ্যারি-মেগানের এই ঘোষণায় ‘ব্যথিত’ হয়েছেন রানী। রাজপরিবারের কারো সঙ্গে আলোচনা না করেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা। এতে রাজপরিবার হতাশ হয়েছে। হ্যারি-মেগােনের ইনস্টাগ্রাম পোস্টের প্রায় দেড় ঘণ্টা পর বাকিংহাম এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ডিউক এবং ডাচেস অব সাসেক্স যেভাবে জীবন কাটাতে চাইছেন, সে সম্পর্কে ধারণা পেয়েছেন কারা। দু'জনের সঙ্গে প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে। তবে এটি একটি অত্যন্ত জটিল বিষয় বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

টিটিএন/এমএস