পেঁয়াজের কেজি ছয় রুপি, ভারতে কৃষকদের বিক্ষোভ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:০৯ পিএম, ২১ মে ২০২২
ছবি: সংগৃহীত

পেঁয়াজের পাইকারি দাম ক্রমাগত কমতে থাকার প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছেন ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য মহারাষ্ট্রের কৃষকরা। কমতে কমতে প্রতি কেজির দাম মাত্র ছয় রুপিতে (৬ টাকা ৭৫ পয়সা প্রায়) নামায় গত বৃহস্পতিবার (১৯ মে) স্থানীয় কৃষি অফিসের সামনে রাস্তা অবরোধ করেন তারা।

শুক্রবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে জানা যায়, মহারাষ্ট্র পেঁয়াজ চাষি সমিতির সঙ্গে যুক্ত কৃষকরা স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকালে দেওলা কৃষি উৎপাদন বাজার কমিটির (এপিএমসি) অফিসের সামনে রাস্তা অবরোধ করেন। এতে নাসিক ও মালেগাঁওয়ের মধ্যে প্রায় এক ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে।

ক্ষুব্ধ কৃষকদের বক্তব্য, গত কয়েকদিনে পেঁয়াজের পাইকারি দাম প্রতি কুইন্টাল (১০০ কেজি) এক হাজার রুপি থেকে কমে ৬০০ রুপিতে দাঁড়িয়েছে।

মহারাষ্ট্র রাজ্য পেঁয়াজ চাষি সমিতির নাসিক জেলা সভাপতি জয়দীপ ভাদানে বলেছেন, প্রতি কুইন্টাল পেঁয়াজ উৎপাদনে তাদের খরচ পড়ছে দুই হাজার রুপি, কিন্তু বিক্রি করে সেই খরচ উঠছে না।

তিনি বলেন, পেঁয়াজের পাইকারি দাম কমে যাওয়ায় কৃষকদের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। আমরা চাই, কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার গত দুই মাস কম দামে পেঁয়াজ বিক্রি করেছে এমন কৃষকদের জন্য প্রতি কুইন্টালে ৫০০ রুপি অনুদান ঘোষণা করুক।

মহারাষ্ট্র রাজ্য পেঁয়াজ চাষি সমিতির এ নেতা আরও অভিযোগ করেন, ন্যাশনাল এগ্রিকালচার কো-অপারেটিভ মার্কেটিং ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া লিমিটেড (এনএএফইডি) সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে না কিনে তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমে পেঁয়াজ সংগ্রহ করছে। এতে কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

জয়দীপ বলেন, সরকারি সংস্থা এনএএফইডি’কে কৃষকদের জন্য একটি ‘বাফার স্টক’ (মূল্য স্থিতিশীল রাখার জন্য মজুত দ্রব্য) তৈরি করতে আড়াই লাখ মেট্রিক টন পেঁয়াজ সংগ্রহের নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। আমরা চাই, তারা সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে পেঁয়াজ কিনুক।

এছাড়া, কৃষকদের সুবিধার জন্য প্রতি কুইন্টাল ২ হাজার ৫০০ রুপি থেকে তিন হাজার রুপি মূল্যে কেন্দ্রীয় সরকারের পেঁয়াজ সংগ্রহ করা উচিত বলেও মন্তব্য করেন জয়দীপ। এটি না হলে কৃষকরা আরও কঠোর আন্দোলনে নামবেন বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

কেএএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]