প্রিয়ার সঙ্গে কেউ জড়িত কিনা দেখা হবে : আইনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:০৭ পিএম, ২১ জুলাই ২০১৯

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের বিষয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রিয়া সাহা যে সব তথ্য দিয়েছেন তা সর্বৈব মিথ্যা।’

তিনি বলেন, ‘প্রিয়া সাহা কোনো ব্যক্তিগত ইচ্ছা চরিতার্থ করার জন্য এসব বলেছেন। এ বিষয়ে কোনো গোষ্ঠী বা অন্য কেউ জড়িত আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে।’

বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে রোববার সহকারী জজদের ৩৯তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

আইনমন্ত্রী মনে করেন, ‘প্রিয়া সাহাকে এত গুরুত্ব না দিয়ে শুধু সত্যটাকে তুলে ধরে বাকিটুকু ইগনোর করলেই ভালো হয়। প্রিয়া সাহার দেয়া বক্তব্য রাষ্ট্রদ্রোহী হয়ে গেছে এটা বোধহয় ঠিক না; তবুও স্বাধীন বিচার বিভাগে বিজ্ঞ বিচারকরা যেটা মনে করবেন সেটা করবেন।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রিয়া সাহার বক্তব্য দেয়ার পরে শুধু হিন্দু সম্প্রদায় না সবাই বলেছে যে বাংলাদেশে আমরা সবাই সম্প্রীতির মাধ্যমে বসবাস করছি। যদি ইতিহাসও ঘাটা হয় তাহলে দেখা যাবে বাংলাদেশের মাটিতে সবচেয়ে কম ধর্মীয় সংঘাত হয়েছে। বাংলাদেশ হওয়ার পরে এরশাদ সরকারের সময়ে একটা হতে গিয়েছিল। এ ছাড়া কিন্তু কেউ উদাহরণ দিতে পারবে না যে, এখানে কোনো ধর্মীয় সংঘর্ষ হয়েছিল। হ্যাঁ, আর একটা ২০০১ সালে বিএনপি যখন ক্ষমতায় এসেছিল তখন তারা কিছুটা এসব কর্মকাণ্ডে লিপ্ত ছিল এবং সেগুলোর বিচার কি হচ্ছে?’

বরগুনার মিন্নির বিষয়ে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘সংবিধানে অত্যন্ত পরিষ্কারভাবে বলা আছে যে, একজন আসামিরও একজন আইনজীবী রাখার অধিকার আছে। সেই ধারাবাহিকতায় যেসব মামলায় মৃত্যুদণ্ড বা যাবজ্জীবন দেয়া যেতে পারে সেখানে আমরা রাষ্ট্রীয় ডিফেন্স দিয়ে থাকি। মিন্নির আইনজীবী পাওয়ার অধিকার আছে।’

বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিচারপতি খোন্দকার মূসা খালেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হকও বক্তব্য দেন।

এফএইচ/এনডিএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :