সিরিজ বোমা হামলা : ১ আসামির জামিন বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৫০ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০২১
২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট একযোগে সারাদেশে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে

বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট একযোগে সারাদেশে বোমা হামলার মামলার আসামি পিরোজপুরের মো. রেদওয়ানুল হক রেদওয়ানের জামিন বাতিল করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে সোমবার (১৮ জানুয়ারি) হাইকোর্টের বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ তার জামিন আবেদন খারিজ করে দেন।

আদালতে আজ জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী হাসিনা জাহান হাজারী। অন্যদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. আমিনুল ইসলাম ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাম্মদ রেজাউল হক।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমিনুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘আবেদনকারীর আইনজীবী মামলার ঘটনাকে গোপন করেছেন। তিনি বলেছিলেন, আবেদনকারী গরিব, এর আগে তিনি আর জামিন আবেদন করেননি ইত্যাদি। পরে গত ১৪ জানুয়ারি তার জামিন মঞ্জুর করে আদেশ দিয়েছিলেন সংশ্লিষ্ট হাইকোর্ট বেঞ্চ।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঘটনার পর আমাদের সন্দেহ দেখা দেয়। তারপর ফাইল ঘেটে দেখি আবেদনকারী নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামাত-উল-মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) সদস্য। ফেনীর আদালত চত্বর ও পৌরসভা এলাকায় ২০০৫ সালে বোমা হামলার ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। সেই ঘটনায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে করা মামলায় তার (রেদওয়ানুল হক) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়। আসামি ১৫ বছর ধরে কারাগারে আছেন। জামিন দেয়ার আগে আদালত বারবার জিজ্ঞেস করেছিলেন, কিন্তু আইনজীবী এ বিষয়টি বলেননি। রাষ্ট্রপক্ষ বিষয়টি আদালতের নজরে আনলে আদেশটি রিকল করা হয়। আজ আদালত তার জামিন আবেদনটি খারিজও করে দিয়েছেন।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জামিন আবেদনকারীর আইনজীবী হাসিনা জাহান হাজারী তথ্য গোপনের কথা অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, ‘তথ্য গোপন করার কী আছে! বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের মামলায় তার (রেদওয়ানুল হক) যাবজ্জীবন হয়েছে। আমি কোনো তথ্য গোপন করিনি।’

তাহলে আদালত কেন জামিন আদেশ রিকল করেছেন— এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আদালত কেন আদেশ রিকল করেছেন সেটা আদালতের ব্যাপার। আমি বলতে পারব না।’

চার দলীয় জোট সরকারের আমলে ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট দেশের অন্যান্য জেলার মতো ফেনীর প্রশাসক কার্যালয় চত্বর ও পৌরসভা এলাকায় বোমা বিস্ফোরণ ঘটায় জেএমবি। এ ঘটনায় সেই দিনই বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে দুটি আলাদা মামলা করে পুলিশ। ওই বছরের ৫ ডিসেম্বর রেদওয়ানুল হককে গ্রেফতার করে পুলিশ। সেই থেকে কারাগারেই আছেন তিনি। পরে ওই বছরের ১০ নভেম্বর দুটি মামলার অভিযোগপত্র দেন পুলিশ। দুটি মামলাতেই আসামি ৬ জন।

বিচারিক কাজ শেষে ২০০৬ সালের ৩ ও ১৭ জুলাই ফেনী জেলা জজ আদালত মামলার রায় দেন। রায়ে ৬ আসামিকেই যাবজ্জীবন দেন বিচারিক আদালত। ওই বছরই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন রেদওয়ানুল হক। আপিল এখন বিচারাধীন।

এফএইচ/এমএসএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]