ঘর থাকুক পরিষ্কার

লাইফস্টাইল ডেস্ক
লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:০৯ পিএম, ২২ মে ২০১৮

আপনি কতটা রুচিশীল মানুষ তা বোঝা যাবে আপনার ঘর কতটা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন তা খেয়াল করলেই। অনেক ক্ষেত্রে ব্যস্ততার জন্য ঠিকভাবে ঘর পরিষ্কার করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। কিন্তু যতটুকু সময় পান, দরকার হলে কারো সাহায্য নিয়ে ঘর পরিষ্কার করুন। চলুন জেনে নেই ঘর পরিষ্কার রাখার সহজ কিছু উপায়-

ফ্রিজে বাটা মসলা ঢেকে রাখতে হবে। এতে গন্ধ ছড়াবে না এবং অন্য খবার থাকবে ফ্রেশ। একদিনের বেশি কোনো খাবার ফ্রিজে রাখা যাবে না। সবজি এবং তরিতরকারি বেশি দিন বাক্সে রাখলে গন্ধ হয়ে যায়। ওভেনে খাবার গরম করার সময় অবশ্যই ঢাকনাসহ বাটি ব্যবহার করতে হবে। নাহলে ওভেনের ভেতরে তৈলাক্ত হয়ে যাবে। সমস্যা বুঝে সমাধান করতে হবে।

ঘরে কার্পেট থাকলে সেই কার্পেট নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে। কারণ কার্পেটে ময়লা জমলে হয়ে যায় আরও বেশি দৃষ্টিকটু এবং নোংরা। কার্পেট পরিষ্কারের জন্য ব্রাশ ব্যবহার করা যেতে পারে। নিয়মিত ব্রাশ দিয়ে কার্পেট পরিষ্কার করলে ধুলো-ময়লা জমার সুযোগ পাবে না।

আসবাবপত্রে যেসব ধুলোবালি জমে সেগুলো অনেকেই ভেজা কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করে থাকেন, যেটা একদমই ঠিক নয়। কারণ ভেজা কাপড় দিয়ে আসবাবপত্র পরিষ্কার করতে গেলে সেগুলোর রং নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই এমন কিছু দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে যাতে রঙের কোনো ক্ষতি না হয়। এরজন্যে মোরগের পালকের তৈরি ঝাড় ব্যবহার করা যেতে পারে।

শোপিস কিংবা কাচের জিনিসপত্র মোছার জন্য বাজারে বিভিন্ন প্রকার লিক্যুইড পাওয়া যায়। এগুলো দিয়ে মুছে নিলে শোপিস অনেক দিন ধরে পরিষ্কার থাকে। মাটির সামগ্রী পরিষ্কারের জন্য একটা কাজ করা যেতে পারে। ডিটারজেন্টের পানি দিয়ে সেগুলো মুছে নেওয়া যেতে পারে। এতে এসব সামগ্রীতে কোনো প্রকার রোগ জীবাণুও থাকবে না।

ঘর সাজানোর জন্য যেসব কৃত্রিম ফুল বা ফুলের গাছ রাখা হয়, সেগুলোতে জমতে পারে ধুলো-ময়লা। তাই সপ্তাহে কমপক্ষে একদিন এগুলো পরিষ্কার করতে হবে। আর এসব পরিষ্কারের নিয়ম হলো, শ্যাম্পু বা ডিটারজেন্ট পানিতে মিশিয়ে সেই পানি দিয়ে এসব ফুল বা ফুলের গাছ ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে।

খাবার টেবিলের ওপরের কাচ মোছার জন্য আলাদা একটি ন্যাপকিন রাখুন। খাবার পর ডাইনিং টেবিলের কাচ মুছে ফেলুন এবং ন্যাপকিন ধুয়ে রাখুন।

বেসিনের পাশে সব সময় সাবান ও হাত মোছার জন্য পরিষ্কার তোয়ালে রাখতে হবে। রান্নাঘরে রান্নার সময় হাত মোছার জন্য আলাদা পরিষ্কার তোয়ালে রাখতে হবে। এবং সেটা দিনে একবার হোলেও ধুতে হবে।

থালাবাসন ধোয়ার পর শুকনো পরিষ্কার ন্যাপকিন অথবা নরম তোয়ালে দিয়ে মুছে রাখতে হবে যেন দাগ না বসে যায়।

জানালার গ্রিল শুকনো ন্যাপকিন দিয়ে মুছে ফেলুন। এটা সপ্তাহে একদিন করলেই হবে।

এইচএন/জেআইএম

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :