ওজন বশে রাখার ৫ মন্ত্র

লাইফস্টাইল ডেস্ক
লাইফস্টাইল ডেস্ক লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৩৮ পিএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
ছবি : শাটারস্টক

ওজন কমাতে সবাই এখন সচেতন। যতই ওজন কমানোর টিপস জানুন না কেন, তা কার্যকর করার চেষ্টা ততটাও সহজ নয়। ওজন কমাতে হলে খাবারে পরিবর্তন আনতে হবে। একইসঙ্গে শরীরচর্চা করতে হবে।

তবে এসব মেনে যদিও বা কেউ ওজন কমান, কিছুদিন পর দেখা যায় আবারও তা বেড়ে যাচ্ছে। এর কারণ কী, আর কীভাবেই বা ওজন ধরে রাখা যায়? এ প্রশ্নের খোঁজ করেন সব স্বাস্থ্য সচেতনরা। জেনে নিন ওজন যাতে না বাড়ে এজন্য কী করবেন-

সকালের নাস্তা বাদ যাবে না

ওজন ধরে রাখতে চাইলে সকালের নাস্তা কখনও বাদ দেওয়া যাবে না। সকাল সাড়ে ৭-৮টার মধ্যেই সকালের নাস্তা সেরে নিন। বিশেষজ্ঞদের মতে, সকালের নাস্তা বাদ দিলে পেশী ভাঙতে শুরু করে। আর সেসব স্থানে ফ্যাট জমতে থাকে।

ফলে ওজন বাড়তে সময় লাগে না। মনে রাখবেন, সকালের নাস্তায় প্রোটিন, ফাইবার ও কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার রাখতে হবে। এতে বেশি উপকার পাবেন।

ক্যালোরি বেশি খাবার পরিহার

ক্যালোরি বুঝে খাবার খেলে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবেন। যেসব খাবারে ক্যালোরি বেশি সেগুলো বাদ দিন। ভাজাপোড়া ও মিষ্টিজাতীয় খাবার খাওয়াও চলবে না।

ফাইবার ও কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার বেশি করে খান। এতে অনেকক্ষণ পেট ভরা থাকবে। একইসঙ্গে ওজন বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা কমবে।

পানি খান গ্লাস গুণে

বেশ কিছু গবেষণার তথ্য মতে, শরীরে পানির ঘাটতি হলে ‘ওয়াটার রিটেনশন’ হয়। এতে ওজন বাড়তে পারে। তাই প্রতিদিন অন্তত ৮ গ্লাস পানি পান করুন।

ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার পাশাপাশি অনেক উপকার মেলে এতে। বিশেষ করে রক্তে মিশে থাকা টক্সিক উপাদানগুলো বেরিয়ে যায়। তাই ছোট-বড় রোগব্যাধি ধারে কাছেও ঘেঁষে না।

কার্বোহাইড্রেট মেপে খান

শরীরকে সচল রাখতে নিয়মিত ১০০ গ্রাম সিম্পল কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার খাওয়া জরুরি। তাই অল্প করে ভাত বা রুটি খেতে পারেন।

শরীরচর্চায় ফাঁকি নয়

ওজন ধরে রাখতে চাইলে শরীরচর্চার বিকল্প নেই। জিমে যেতে না পারলে অল্প হাঁটাহাঁটি, দড়িলাফ করুন, এতেও উপকার পাবেন। লিফটের পরিবর্তে সিঁড়ি ব্যবহার করার অভ্যাস গড়ুন। এতে দ্রুত ওজন কমতে শুরু করবে।

আসলে ওজন বাড়বে না কমবে, তা নির্ভর করে মেটাবলিজম রেটের উপর। বিভিন্ন গবেষণা অনুযায়ী, সপ্তাহে কমপক্ষে ২০০ মিনিট ব্যায়াম করলে মেটাবলিজ রেট অনেকটা বেড়ে যায়। ফলে ওজন কমতেও সময় লাগে না।

জেএমএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]