ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াবে ঘরে তৈরি চিনির স্ক্রাব

লাইফস্টাইল ডেস্ক
লাইফস্টাইল ডেস্ক লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:১৫ এএম, ২৫ জুন ২০২২

চিনি ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে দারুন কার্যকরী এক উপাদান। এটি শুধু একটি দুর্দান্ত স্ক্রাবিং উপাদানই নয় বরং ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতেও সাহায্য করে।

মুখে চিনির স্ক্রাব ব্যবহারের ফলে ত্বকের মৃতকোষ সহজেই দূর হয় ও গভীরভাবে পরিষ্কার হয় ত্বক। রান্নাঘরে থাকা বেশকিছু উপাদান চিনির সঙ্গে মিশিয়ে সহজেই তৈরি করা যায় স্ক্রাব।

লেবু ও চিনির স্ক্রাব

লেবু প্রাকৃতিকভাবে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাাতে সাহায্য করে। চিনির সাথে লেবুর রস মিশিয়ে আপনি সহজেই তৈরি করতে পারেন ত্বকের কালচে ভাব কিংবা রোদে পোড়া দাগ। এই স্ক্রাব ত্বকে লাগিয়ে ২০-৩০ মিনিট রেখে তারপর আলতো করে ম্যাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। তবে ভুলেও জোরে ঘষবেন না।

সবুজ চা ও চিনির স্ক্রাব

গ্রিন টি যেমন স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী, ঠিক তেমনই এতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি ও অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্য ত্বকের সতেজতা বাড়ায়, ব্রণ ও ত্বকের দাগ দূর তরতে সাহায্য করে।

এজন্য এক চা চামচ গ্রিন টি’র সঙ্গে এক চা চামচ চিনির সঙ্গে সামান্য অলিভ অয়েল মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করে কিছুক্ষণ রেখে আঙুলের ডগা দিয়ে আলতোভাবে স্ক্রাব করে ধুয়ে ফেলুন।

ওটমিল ও চিনির স্ক্রাব

তৈলাক্ত ত্বক ও ব্রণের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ওটমিল ও চিনির স্ক্রাব ব্যবহার করুন। ওটমিল ত্বকে অতিরিক্ত তেল শুষে নেয় ও এতে থাকা অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য ব্রণ নিরাময়েও সাহায্য করে। ওটমিল ও চিনির সঙ্গে সামান্য অলিভ অয়েল বা মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে ত্বকে ব্যবহার করুন।

হলুদ ও চিনির স্ক্রাব

হলুদ ত্বকের জন্য আরেকটি জাদুকরী উপাদান। এটি ত্বকের রোদে পড়া দাগ, ব্রণের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। ত্বকের কালচে দাগ দূর করতে এক টেবিল চামচ হলুদ গুঁড়ার সঙ্গে এক চা চামচ চিনি মিশিয়ে পুরো মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করে তারপর ম্যাসাজ করে ধুয়ে নিন।

টমেটো ও চিনির স্ক্রাব

ত্বকের যত্নে টমেটো খুবই উপকারী। এতে থাকা অ্যান্টি-এজিং বৈশিষ্ট্য ত্বকের বলিরেখা দূর করে সতেজতা বাড়ায়। এজন্য একটি টমেটো অর্ধেক করে কেটে তাতে এক চা চামচ চিনি ছড়িয়ে আলতো করে সারা মুখে স্ক্রাব করুন। এরপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন ও পরে ময়েশ্চারাইজার লাগান।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

জেএমএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]