ঢাকায় ওআইসির সম্মেলন, কেনা হচ্ছে ৩০ মার্সিডিজ গাড়ি

মেসবাহুল হক
মেসবাহুল হক মেসবাহুল হক , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৫৯ পিএম, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭

অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশনের (ওআইসি) পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ৪৫তম সম্মেলনে আসা অতিথিদের যাতায়াতের জন্য ৩০টি মার্সিডিজ-বেঞ্জ (এস ক্লাস)/বিএমডব্লিউ-৭ সিরিজের গাড়ি আমদানি করছে সরকার। আগামী বছরের ৫ ও ৬ মে ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে এই সম্মেলন।

গাড়িগুলো শুল্কমুক্ত সুবিধায় আমদানির নীতিগত অনুমোদনের জন্য বুধবার (২০ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে অনুষ্ঠিতব্য অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় একটি প্রস্তাব উপস্থাপন করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. মোজাম্মেল হক খান স্বাক্ষরিত ওই প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, ‘ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য ওআইসি পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সম্মেলনে আসা অতিথিদের যাতায়াতের জন্য বাংলাদেশের পক্ষ হতে প্রয়োজনীয় পরিবহন সুবিধা প্রদান করার জন্য ৩০টি মার্সিডিজ বেঞ্জ (এস ক্লাস)/বিএমডব্লিউ-৭ সিরিজের গাড়ি আমদানি প্রয়োজন। গাড়িগুলো শুল্কমুক্ত সুবিধায় ক্রয়ের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নীতিগত অনুমোদন রয়েছে। এখন অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদন প্রয়োজন।’

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গত ৩০ অক্টোবর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে এ সংক্রান্ত একটি সার-সংক্ষেপ পাঠায়।

এ সার-সংক্ষেপে বলা হয়, ‘বিশ্বের দরবারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অগ্রসরমান বাংলাদেশের সম্মানজনক অবস্থানকে সমুন্নত রাখার নিমিত্তে এবং আলোচ্য সম্মেলনের গুরুত্ব ও মর্যাদা বিবেচনায় ৩০টি মার্সিডিজ বেঞ্জ (এস ক্লাস)/বিএমডব্লিউ-৭ সিরিজ সেডান কার সম্মেলনটিতে ব্যবহারে জন্য সংগ্রহ করা প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক অনুমোদিত সার-সংক্ষেপে সময়ের স্বল্পতা হেতু সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে ৩০টি মার্সিডিজ বেঞ্জ (এস ক্লাস)/বিএমডব্লিউ-৭ সিরিজ সেডান কার ক্রয় করার নির্দেশনা রয়েছে।’

‘সম্মেলনে ব্যবহারের পর সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এসব গাড়ি ভবিষ্যতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্মেলনে আমন্ত্রিত ভিভিআইপি অতিথিদের ব্যবহারের জন্য পাঁটি গাড়ি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এবং অবশিষ্ট গাড়িগুলো সরকারি পরিবহন পুলে হস্তান্তর করা হবে।যেহেতু প্রস্তাবিত গাড়িগুলো বিশেষভাবে রাষ্ট্রীয় প্রটোকল ও সরকারি প্রয়োজনে ব্যবহারের জন্য বিবেচ্য, সেহেতু গাড়িগুলো ক্রয়ে শুল্ক অব্যাহতি প্রদান যুক্তিযুক্ত।’

প্রস্তাবনায় আরো বলা হয়, ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে সরকারি যানবাহন অধিদফতরের অনুকূলে সংশ্লিষ্ট কোডে বরাদ্দ করা অর্থে গাড়িগুলো আমদানি করা যেতে পারে।

এর আগে গত ১২ জুলাই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছিলে, আগামী বছর ওআইসি পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ৪৫তম সম্মেলনের আয়োজন করতে যাচ্ছে ঢাকা। আইভরি কোস্টের অর্থনৈতিক রাজধানী আবিদজানে চলমান ওআইসি পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ৪৪তম সম্মেলনে এ সিদ্ধান্ত হয়।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ওআইসিতে বাংলাদেশের সক্রিয় ও গঠনমূলক ভূমিকা এবং ক্রমবর্ধমান গুরুত্বের স্বীকৃতি হিসেবে এ সিদ্ধান্ত এসেছে।

তখন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলী বাংলাদেশের জনগণকে এ সম্মান প্রদান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের ওপর পুনরায় আস্থা রাখার জন্য সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে ধন্যবাদ জানান।

এমইউএইচ/জেডএ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :