কমলাপুর ও বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশনের উন্নয়ন পিপিপিতে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:২৩ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০১৮
ফাইল ছবি

রাজধানীর কমলাপুর ও বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশনকে ঘিরে মাল্টি মোডাল ট্রানজিট হাব (একই স্থানে একাধিক গণপরিবহন টার্মিনাল) নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। প্রকল্প দুটি পিপিপি ভিত্তিতে (সরকারি বেসরকারি অংশিদারিত্বে) বাস্তবায়নে নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বুধবার (১৭ অক্টোবর) সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত কমিটির বৈঠকে এ নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়। শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোসাম্মৎ নাসিমা বেগম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘ঢাকা-বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশন মাল্টি মোডাল হাব নির্মা ‘ ও ‘ঢাকা (কমলাপুর) রেলওয়ে স্টেশন মাল্টি মোডাল হাব নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্প দুটি পিপিপি ভিত্তিতে বাস্তবায়নের নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, বর্তমান সরকারের আমলে নতুন নতুন স্টেশন, রেলপথ নির্মাণ, ট্রেনের সংখ্যা বৃদ্ধিসহ রেলওয়ে ব্যাপক উন্নয়ন হলেও সেবার মান ও নিরাপত্তা দুর্বলতায় যথাযথ সুফল পাচ্ছে না যাত্রীরা। দুই স্টেশনে যাত্রী দুর্ভোগ লেগেই থাকে। দুটি স্টেশনেই ট্রেনে উঠা-নামায় যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। রাতে যাত্রীদের প্রাণ ভয় ও ছিনতাইকারী থেকে রক্ষা পেতে স্টেশনেই রাত কাটাতে হয়। স্টেশন দুটির নিরাপত্তা ব্যবস্থায়ও দুর্বলতা রয়েছে। এ অবস্থায় রেলের উন্নয়নকে যথাযথ কাজে লাগাতে মাল্টি মোডাল ট্রানজিট হাব নির্মাণের বিকল্প নেই।

রেল মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ‘কমলাপুর ও বিমানবন্দর রেলস্টেশন অত্যাধুনিক করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বর্তমান সরকারের আমলে রাজধানী তথা রেলওয়েতে ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে। চলমান রয়েছে বহু উন্নয়ন প্রকল্প। একই সঙ্গে অত্যাধুনিক বহু উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগও নেয়া হয়েছে।

‘মেট্রোরেল, বিআরটি, আন্ডার মেট্রোরেলসহ সব প্রকল্প বিমানবন্দরের সঙ্গে সংযুক্ত। তাই রেল মন্ত্রণালয় কমলাপুর ও বিমানবন্দর রেলস্টেশনকে এমনভাবে গড়তে চায়, যাতে দুটি স্টেশন রাজধানীর পুরো উন্নয়নের সঙ্গে সংযুক্ত থাকে। ট্রেন যাত্রীরা যাতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আন্ডারগ্রাউন্ড পথ দিয়ে অনায়াসে বিমানবন্দর রেলস্টেশনে আসা-যাওয়া করতে পারেন।

জাপান সরকার রেলওয়ের এ দুটি স্টেশন ঘিরে অত্যাধুনিক মাল্টি মোডাল ট্রানজিট হাব নির্মাণের আশ্বাস দিয়েছে।

এমইউএইচ/এএইচ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :