ঈদের আগে বোনাস, ৪ শতাংশ কর্তন স্থগিত না হলে ধর্মঘট

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২০ পিএম, ০১ মে ২০১৯

আসন্ন ঈদুল ফিতরের আগেই পূর্ণাঙ্গ ঈদ বোনাস প্রদান এবং বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের (এমপিওভুক্ত) বেতনের অতিরিক্ত চার শতাংশ কর্তন স্থগিত না করা হলে শিগগিরই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ধর্মঘটের আহ্বান করা হবে বলে হুমকি দিয়েছে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ও এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জাতীয় লিয়াজোঁ কমিটি।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (নজরুল) ও এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ লিয়াজোঁ ফোরামের যৌথ উদ্যোগে এক প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধনে এসব দাবি জানায় বক্তারা।

মানববন্ধনে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালকের (ডিজি) ভূমিকা নিয়ে শিক্ষক নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘অতিরিক্ত চার শতাংশ কর্তন স্থগিত করার বিষয়ে মাউশির ডিজির কোনো আন্তরিকতা বা ভূমিকা না থাকায় অত্যন্ত মর্মাহত হয়েছি।’

তারা বলেন, ‘অতিরিক্ত চার শতাংশ কর্তন স্থগিতসহ আসন্ন ঈদুল ফিতরের আগেই ২৫ শতাংশের পরিবর্তে পূর্ণাঙ্গ ঈদ বোনাস প্রদান এবং ২০১৯-২০ অর্থবাজেটে সকল এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণে প্রয়োজনীয় বাজেট বরাদ্দ রাখতে হবে। সরকারি চাকরিজীবীদের ন্যায় বাড়িভাড়া প্রদান ও এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বদলির নীতিমালা চালু করতে হবে, নতুবা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অবিরাম ধর্মঘটসহ আরও কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।’

প্রতিবাদ সভা এবং মানববন্ধন কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি ও এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ লিয়াজোঁ ফোরামের মুখপাত্র মো. নজরুল ইসলাম রনি। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো. মেজবাহুল ইসলাম প্রিন্স।

মানববন্ধনে একাত্মতা প্রকাশ করেন বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. দেলোয়ার হোসেন। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি গাজী মামুন আল জাকির, সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।

এফএইচ/এসআর/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :