১৮ ঘণ্টা অপেক্ষার পর মিলল টিকিট

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:০৩ এএম, ২৯ জুলাই ২০১৯

পরিবারের সঙ্গে ঈদ করার আনন্দই আলাদা। মা, বাবা ও স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে টিকিটের জন্য একদিন আগে থেকে দীর্ঘলাইনে দাঁড়িয়ে থেকে অপেক্ষা। অবশেষে ১৮ ঘণ্টা পর মিলল টিকিট নামক ‘সোনার হরিণ’। টিকিট হাতে পেয়ে খুশি। বললেন, ঈদে বাড়ি যাবার টিকিট পেয়েছি। মা-বাবার সঙ্গে ঈদ করতে পারব।

আজ সোমবার (২৯ জুলাই) থেকে ট্রেনে অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে দীর্ঘ অপেক্ষার পর টিকিট পেয়ে এমন অনুভূতির কথা বলেন বুবর্ণ নামের এক যাত্রী।

ticket

বুবর্ণ বলেন, ‘গ্রামের বাড়ি দিনাজপুর। ৭ আগস্টের টিকিটের জন্য রোববার (২৮ জুলাই) বিকেল সাড়ে চারটায় লাইনে দাঁড়িয়েছি। আজ সোমবার (২৯ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯টায় টিকিট পেলাম। অনেক অপেক্ষার পরও টিকিট পেয়ে ভালো লাগছে। এখন ঈদে বাড়ি যেতে পারব, বাবা-মার সঙ্গে ঈদ করতে পারব।’

টিকিটের জন্য অপেক্ষার বর্ণনা দিয়ে এই যাত্রী বলেন, ‘গতকাল বিকেল সাড়ে চারটায় লাইনে দাঁড়িয়েছি। এখানে অনেকেই লাইনে ছিল। আমরা নিজেরাই লাইন ঠিক করেছি। আমার সিরিয়াল ছিল ১১ নম্বর। দীর্ঘ ১৮ ঘণ্টা অপেক্ষার পর আজকে সকাল সাড়ে নয়টায় এসি টিকিট পেয়েছি। চারটা টিকিট কিনেছি। খুব ভালো লাগছে।’ অপেক্ষার পর ঈদে ট্রেনের টিকিট পাওয়ার আনন্দ ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।

Ticket-Train

নাড়ির টানে বাড়ি ফেরার আসায় টিকিট ক্রয়ে রীতিমতো যুদ্ধে নেমেছেন হাজারো মানুষ। দীর্ঘলাইনে দাঁড়িয়েছেন কেউ, আবার কেউবা আগের দিন কেউ ভোর থেকে অপেক্ষা করছেন টিকিটের জন্য।

এমনই একজন বেসরকারি চাকরিজীবী মো. মামুন। জাগো নিউজকে তিনি বলেন, ‘পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ঈদে খুলনা যাব। ৭ আগস্টের টিকিটের জন্য ভোর ৫টার পর থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি। পৌনে ১০টায় টিকিট পেলাম। এবার টিকিট পেতে কোনো সমস্যা হয়নি। ঈদে বাড়ি যাওয়ার নিশ্চিয়তা হলো খুব ভালো লাগছে।’

দীর্ঘলাইনে অপেক্ষার যারা টিকিট পাচ্ছেন তাদের মুখে উৎসবের হাসি। আবার অনেকে সেই টিকিটের প্রত্যাশায় অপেক্ষায় আছেন। তারা বলছেন, শেষ পর্যন্ত টিকিট পেয়ে পরিবার নিয়ে গ্রামে যেতে পারলে সব কষ্ট দূর হবে।

ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রির বিষয়ে স্টেশনের ম্যানেজার মোহাম্মদ আমিনুল হক জানান, সকাল ৯টা থেকে প্রথম দিনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। আজ বিক্রি হচ্ছে ৭ আগস্টের টিকিট। প্রতি যাত্রীকে চারটি করে টিকিট দেয়া হচ্ছে।

Ticket-Train

তিনি বলেন, ‘ঈদ উপলক্ষে আমাদের পর্যাপ্ত টিকিট রয়েছে। সুশৃঙ্খলভাবে টিকিট বিক্রি হচ্ছে। যতক্ষণ পর্যন্ত টিকিট আছে ততক্ষণ সবাই পাবেন।’

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, আগামীকাল ৩০ জুলাই ৮ আগস্টের, ৩১ জুলাই ৯ আগস্টের, ১ আগস্ট ১০ আগস্টের এবং ২ আগস্ট ১১ আগস্টের অগ্রিম টিকিট দেয়া হবে।

ঈদুল ফিতরের মতো এবারো রাজধানী ঢাকার পাঁচটি স্থান থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি হচ্ছে। স্থানগুলো হচ্ছে কমলাপুর স্টেশন, বিমানবন্দর স্টেশন, বনানী স্টেশন, তেজগাঁও স্টেশন এবং ফুলবাড়িয়া স্টেশন।

প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টিকিট বিক্রি করা হবে। আর মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে টিকিট বিক্রি শুরু হবে সকাল ৬টা থেকে।

এসআই/এসআর/পিআর