শুরুতেই এসি টিকিট না পাওয়ার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:৩৭ এএম, ০১ আগস্ট ২০১৯

ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রির শিডিউল অনুযায়ী আজ বিক্রি হচ্ছে আগামী ১০ আগস্টের টিকিট। টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে সকাল ৯টায়। কিন্তু কমলাপুর রেল স্টেশনে টিকিটপ্রত্যাশীরা কাউন্টারের সামনে অবস্থান করছেন গতরাত থেকেই। কাউন্টারের সামনে থেকে লাইন চলে গেছে স্টেশনের বাইরের রাস্তা পর্যন্ত। তবে দীর্ঘসময় লাইনে দাঁড়িয়েও কাঙ্ক্ষিত এসি টিকিট না পাওয়ার অভিযোগ জানিয়েছেন টিকিটপ্রত্যাশীরা।

সকাল ৯টা থেকে কমলাপুর রেল স্টেশন, বিমানবন্দ, বনানী, তেজগাঁও এবং ফুলবাড়িয়া স্টেশন থেকে ১০ আগস্টের টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। ঢাকার এই ৫টি স্থান থেকে আজ ২৭ হাজার ৮৮৫টি অগ্রিম টিকিট বিক্রি করবে রেলওয়ে। এর মধ্যে ১৩ হাজার ৯৪৩টি টিকিট বিক্রি হবে কাউন্টারে। বাকি ১৩ হাজার ৯৪২ টিকিট বিক্রি হবে অনলাইন ও রেল সেবা অ্যাপের মাধ্যমে।

টিকিট বিক্রির শুরু পর থেকেই এসি টিকিট না পাওয়ার অভিযোগ জানিয়ে আসছেন অনেকে। রাজশাহীগামী সিল্কসিটি ট্রেনের এসি টিকিটের জন্য গতরাত থেকে নির্ধারিত কাউন্টারের সামনে অপেক্ষা করছিলেন বেসরকারি চাকরিজীবী ওমর ফারুক।

তিনি বলেন, স্ত্রী, সন্তানসহ ঈদ উদযাপনে বাড়ি যাবো। অতিরিক্ত ভিড়ের মধ্যে ঈদযাত্রা এমনিতেই খুবই ভোগান্তির। এর মধ্যে আবার ছোট বাচ্চা নিয়ে দীর্ঘ পথ যাওয়া। সে কারণে কিছুটা ভোগান্তি অবসানের লক্ষ্যে, এসি টিকিট পাওয়ার আশায় গতরাতেই লাইনে দাঁড়িয়েছিলাম। দীর্ঘসময় লাইনে দাঁড়ানোর পর আজ সকাল ৯ টায় যখন টিকিট বিক্রি শুরু হলো, তার কিছু পরেই কাউন্টার থেকে জানানো হলো- এসি টিকিট শেষ।

তিনি বলেন, তাহলে এমন হাজারো মানুষ গত রাত থেকে লাইনে দাঁড়িয়েও যদি কাঙ্ক্ষিত এসি টিকিট না পায়, তবে এই টিকিটগুলো পায় কারা?

rail

পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিটের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন বেসরকারি চাকরিজীবী হাবিবুর রহমান।

তিনি বলেন, আমি গতরাতে এসে লাইনে দাঁড়িয়েছি। টিকিট বিক্রি শুরুর কিছু পরেই অর্থাৎ কয়েকটা সিরিয়াল যাওয়ার পরেই কাউন্টার থেকে জানালো, পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের এসি টিকিট শেষ। ঈদে যেহেতু বাড়িতে যেতেই হবে তাই এখন বাধ্য হয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি, নরমাল টিকিট সংগ্রহ করতে।

রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিটের জন্য কাউন্টারের লাইনে দাঁড়িয়েই রেলসেবা অ্যাপে টিকিটের জন্য চেষ্টা করছিলেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাজ্জাত হোসেন।

তিনি বলেন, আমি ভোরে এসে লাইনে দাঁড়িয়েছি, আর তখন থেকেই অ্যাপে টিকিট কাটার চেষ্টা করছি, কিন্তু ঠিকমতো ঢুকতেই পারছি না। যদি কোনোবার অ্যাপে প্রবেশ করা যায়, তখন বারবার দেখাচ্ছে মোবাইলের কোটা শেষ। তাই এখনও লাইনে দাঁড়িয়ে আছি, যদি কাউন্টার থেকে টিকিট পাই সে আশায়। কিন্তু যে দীর্ঘলাইন, এতে করে টিকিট পাব কি না, তা নিয়ে শঙ্কিত।

টিকিট বিক্রির সার্বিক বিষয়ে কমলাপুর স্টেশনের ম্যানেজার আমিনুল হক বলেন, ‘ঈদের সময় সবাই এসি টিকিট চায়, কিন্তু আমাদের এসি সিট তো সীমিত, তাই সবাইকে দেয়া সম্ভব হয় না। প্রতিটি লাইনে মানুষ সুশৃঙ্খলভাবে দাঁড়িয়ে টিকিট সংগ্রহ করছেন। এ ছাড়া ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রিতে যেন কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, সে লক্ষ্যে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীসহ রেলওয়ের নিজস্ব বাহিনী তৎপর রয়েছেন।’

rail

‘আমরা সুশৃঙ্খলভাবে টিকিট দেয়ার চেষ্টা করছি। কাউন্টারে যতক্ষণ টিকিট থাকবে, ততক্ষণ যাত্রীরা পাবেন।’

জানা গেছে, আগামীকাল বিক্রি হবে ১১ আগস্টের টিকিট। এ ছাড়া ঈদ শেষে ফিরতি টিকিটের ক্ষেত্রে ৫ আগস্ট দেয়া হবে ১৪ আগস্টের টিকিট, ৬ আগস্ট ১৫ আগস্টের, ৭ আগস্ট ১৬ আগস্টের, ৮ আগস্ট ১৭ আগস্টের এবং ৯ আগস্ট ১৮ আগস্টের ট্রেনের অগ্রিম ফিরতি টিকিট দেয়া হবে।

রেলে প্রতিদিন দুই লাখ ৭৭ হাজার মানুষ চলাচল করলেও ঈদের সময় তা বেড়ে প্রায় চার লাখে দাঁড়াবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

অন্যদিকে ঈদের ১০ দিন আগে এবং ঈদের পর ১০ দিন পর্যন্ত ট্রেনে ভিআইপিদের জন্য সেলুন সংযোজন করা হবে না। এ ছাড়া আগামী ১১ ও ১৪ আগস্ট ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা রুটে মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল করবে না।

ঈদ উপলক্ষে অতিরিক্ত যাত্রী চাহিদা মেটানোর জন্য এক হাজার ৪৩৭টি যাত্রীবাহী কোচ সার্ভিসে যুক্ত করার পরিকল্পনা নিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

এএস/জেডএ/জেআইএম


আরও পড়ুন