কর্মগুণে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রিয় ‘আয়শা আপা’

মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল
মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১০:২১ পিএম, ১১ নভেম্বর ২০১৯

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সহকারী পরিচালক পদমর্যাদার চিকিৎসক কর্মদক্ষতা ও সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। ডেঙ্গু, ডায়রিয়া, দুর্ঘটনা, ঘুর্ণিঝড় যেকোনো রোগব্যাধি কিংবা দুর্যোগে আক্রান্তদের ব্যাপারে সঠিক পরিসংখ্যান সরবরাহের মাধ্যমে তিনি বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার কাছে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন।

দুর্যোগকালীন নির্ধারিত সরকারি কর্মঘণ্টার বাইরেও কর্মস্থলে সময় কাটাচ্ছেন। গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে স্বাস্থ্য অধিদফতরের ইতিবাচক সংবাদ প্রচারেরও পরোক্ষ ভূমিকা পালন করছেন। স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিভিন্ন কার্যক্রমের তথ্য উপাত্তের প্রয়োজনে গণমাধ্যম কর্মীদের ভরসাস্থল হয়ে উঠেছেন তিনি।

রাজধানীর মহাখালীর স্বাস্থ্য অধিদফতরে কর্মরত এই চিকিৎসকের নাম ডা. আয়শা আক্তার। তিনি অধিদফতরের হেলথ ইর্মাজেন্সি অপারেশনস সেন্টার অ্যান্ড কন্ট্রোল রুমের সহকারী পরিচালক পদে কর্মরত। চলতি বছর রাজধানীসহ সারা দেশে এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দেওয়ার পর থেকেই গণমাধ্যমকর্মীরা পেশাগত প্রয়োজনে তার সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেন।

রাজধানী ও রাজধানীর বাইরের সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গুতে প্রতিদিন নতুন করে কতজন নারী, পুরুষ ও শিশু আক্রান্ত হয়েছেন, কতজন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন, কতজন রিলিজ পেয়েছেন কিংবা কতজন মারা গেছেন- প্রতিবেদন তৈরির জন্য এ সংক্রান্ত তথ্য-উপাত্ত স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের প্রধান হিসেবে তিনিই তার টিমের সদস্যদের সাথে নিয়ে সংগ্রহ করে গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে সরবরাহ করেন।

jagonews24

বিগত বছরগুলোতে নিয়ন্ত্রণ কক্ষের তথ্য-উপাত্তের সঙ্গে গণমাধ্যম কর্মীদের তথ্য-উপাত্তের বিশাল ফারাক নিয়ে নানা প্রশ্নে উঠলেও ডা. আয়শা একদিকে যেমন কঠোর পরিকশ্রম করে সারা দেশ থেকে তথ্য সংগ্রহ করেছেন তেমনি গণমাধ্যম কর্মীদের কাছ থেকেও তথ্য পেয়ে তা সংশ্লিষ্ট হাসপাতালে যোগাযোগ করে তথ্যের সমন্বয় করেছেন। ডেঙ্গু দুর্যোগের সময় বিদেশে প্রশিক্ষণে যাওয়ার সুযোগ পেলেও নিজের তাগিদেই তা বাতিল করেছেন।

সর্বশেষ দু’দিন আগেও ঘুর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর সময়ও তিনি সকাল থেকে রাত অবধি স্বাস্থ্য অধিদফতরের সার্বিক প্রস্তুতি উপদ্রুত এলাকার মেডিকেল টিম, আশ্রয় কেন্দ্র, আহত ও নিহতদের সর্বশেষ তথ্য গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে দ্রুত সরবরাহ করেছেন।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে ডা. আয়শা আক্তার বলেন, নিজেদের পেশাগত দায়িত্বপালনের অংশ হিসেবেই বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন গণমাধ্যমের জুনিয়র ও সিনিয়র কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপিত হয়। তার টিমের সকলের প্রচেষ্টায় তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে তিনি যেমন গণমাধ্যম কর্মীদের তথ্য সরবরাহ করেন তেমনি গণমাধ্যম কর্মীদের কাছ থেকেও তারা তথ্য পান। গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখে কাজ করতে পেরে তিনি খুশী ও আনন্দিত বলে জানান।

এমইউ/এমআরএম