ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকদের অবস্থান কর্মসূচি

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০১ পিএম, ০২ জুলাই ২০২০

ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক গ্র্যাজুয়েট (বিইউএমএস ও বিএএমএস) চিকিৎসকদের হয়রানির প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি ও স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকদের সংগঠন স্বাধীনতা দেশজ চিকিৎসক পরিষদের (স্বাদেচিপ) ব্যানারে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সহস্রাধিক চিকিৎসক অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন।

এ সময় বক্তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত পদক্ষেপ অনুযায়ী ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক গ্র্যাজুয়েট চিকিৎসকরা প্রান্তিক অঞ্চল থেকে শুরু করে দেশের সর্বত্র সাধারণ মানুষের চিকিৎসাসেবা প্রদানে বদ্ধপরিকর। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী এই চিকিৎসা ও শিক্ষা ব্যবস্থান ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড হাতে নিয়েছেন এবং প্রথম শ্রেণির পদমর্যাদায় প্রায় তিন শতাধিক বিইউএমএস ও বিএএমএস ডিগ্রিধারী চিকিৎসকদের মেডিকেল অফিসার পদে বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জেলা সদর হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়োগ দিয়েছেন।

তারা আরও বলেন, দেশের করোনাকালীন এই ক্রান্তিলগ্নে অন্যান্য চিকিৎসকদের সঙ্গে বিএএমএস ও বিইউএমএস চিকিৎসকরা কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, সরকারি কর্মচারী হাসপাতালসহ বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জেলা সদর হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোস্টার ভিত্তিক ডিউটি করেছেন। বিইউএমএস ও বিএএমএস ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক গ্র্যাজুয়েট চিকিৎসকরা নিজস্ব পদ্ধতির চিকিৎসার পাশাপাশি তাদের কোর্স কারিকুলামের অংশ হিসেবে যেকোনো জরুরি ও আধুনিক চিকিৎসা দিতে সক্ষমতা রাখে।

বক্তারা বলেন, ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক গ্রাজুয়েট চিকিৎসকদের সফলতা ও সক্ষমতায় ঈর্ষান্বিত হয়ে কিছু ষড়যন্ত্রকারী আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে ভুল বুঝিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারাকে ব্যাহত করতে বিইউএমএস ও বিএএমএস চিকিৎসকদের হয়রানি করছে। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে দেশের বেসরকারি হাসপাতালে বৈধভাবে কর্মরত বিইউএমএস ও বিএএমএস চিকিৎসকদের প্রাতিষ্ঠানিক সনদ ও তথ্য-প্রমাণাদি থাকা সত্ত্বেও তাদের যোগ্যতাকে খাটো করে অনুমান নির্ভর অসামাঞ্জস্যপূর্ণ তথ্য বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশ করে জনমনে ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক চিকিৎসাকে হেয়প্রতিপন্ন করা হচ্ছে।

এ সময় স্বাধীনতা দেশজ চিকিৎসক পরিষদের পক্ষ থেকে এর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয়। পাশাপাশি বিইউএমএস ও বিএএমএস চিকিৎসকদের জন্য বাংলাদেশ ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক মেডিকেল কাউন্সিল গঠনের জন্য জোর দাবি করা হয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন স্বাধীনতা দেশজ চিকিৎসক পরিষতেদর সভাপতি ডা. আ জ ম দৌলত আল মামুন, মহাসচিব ডা. এ কে এম মামুন উর রশিদ চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. জ্যোতিষ চন্দ্র মন্ডল ও ডা. ইউসুফ, সাংগাঠনিক সম্পাদক ডা. আবু বকর সিদ্দিক, ডা. এ এইচ এম কামরুজ্জামান সুমন, ডা. সোহরাব হোসেন বাদল, ডা. রুহুল আমিন ভূঁইয়া, ডা. অনাদি হোসেন মামুন, ডা. মমিনুল ইসলাম রানা। আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক গ্রাজুয়েট চিকিৎসক সমন্বয় পরিষদের আহ্বায়ক ডা. আলমগীর হোসেন, সরকারি ইউনানি আয়ুর্বেদিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকবৃন্দ।

এমএসএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]