ইফতার নিয়ে রাজনীতি করছেন বিএনপি নেতারা : কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৩৩ পিএম, ২১ মে ২০১৮

বিএনপি নেতারা ইফতার নিয়ে রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে এক ইফতার অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ইফতারের সময় রাজনৈতিক বক্তব্য রাখেন না, এমন কি আমিও রাখি না। কিন্তু ফখরুল ইসলাম আলমগীররা ইফতার নিয়েও রাজনীতি করে। ইফতারের সময় তারা রাজনৈতিক বিদ্বেষ ছড়ায়। প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে। তারা দেশের মানুষের কাছে তো নালিশ করেই, বিদেশিদের কাছেও নালিশ করে।

তিনি বলেন, এটা তাদের রাজনৈতিক দেওলিয়াপনা ছাড়া আর কিছু না। রাজনীতিতে তারা এত নিচে নেমে গেছে যে, ইফতার পার্টিতে এসে রাজনীতি করছে এবং বিদেশিদের কাছে অশ্রাব্য ভাষায় নালিশ করছে। যেটা রাজনৈতিক ভাষা নয় সেটাও বলছে। আমরা সেটা করি না, করবো না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তিনি ওখানে যে কথা বলেছেন, আমরাও জেলখানায় ছিলাম। বেগম জিয়া যেই জায়গাটায় আছেন, সেটা আমরা দেখেছি। সেখানে যেভাবে রুমটাকে সাজানো হয়েছে। একদম ফার্স্ট ক্লাস জায়গায় আছেন, যেখানে আমরাও ছিলাম না।

তিনি বলেন, এখন তারা বিরোধী দলে আছেন, বিএনপির নেতারা এ নিয়ে বলবেনই। জেল কোর্ট অনুযায়ী বেগম জিয়া যা যা প্রাপ্য সব কিছু করা হচ্ছে এবং যদি আরও কিছু করার দরকার হয় সেটাও করা হবে। চিকিৎসার জন্য আরও কিছু করার দরকার হলে সরকার করবে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, কারাগারে ব্যক্তিগত গৃহপরিচারিকা রাখার কোনো সুযোগ নেই। সেটাও এলাউ করা হয়েছে। তার জন্য ব্যক্তিগত চিকিৎসক রাখার কোন নিয়ম নেই, এই নিয়মও বেগম জিয়ার জন্য ভাঙা হয়েছে, কারণ তিনি একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ওনাকে আমরা অপমান করতে চাই না। জেলে দিয়েছেন আদালত মুক্তি দিতে পারেন আদালত। কিন্তু মানুষ হিসেবে মানবিকতা দিক দিয়ে তারও বয়স হয়েছে তাকে যথাযথ চিকিৎসা দেয়া তার সঙ্গে মানবিক আচরণ করা সরকারের কোনো গাফলতি নেই।

সরকারের অধীনে নির্বাচন করা বিএনপির জন্য আত্মঘাতী হবে- তাই তারা এই সরকারে অধীনে নির্বাচনে যাবে না এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, খুব ভালো কথা, তারা গতবার নির্বাচনে যায়নি, নির্বাচনের বৈধতার কোনো সংকট হয়নি, এবারও হবে না। আর আত্মঘাতীর বিষয়টা তাদের মূল্যায়নের ব্যাপার, তাদের জন্য আত্মঘাতী কি-না। তবে তাদের জন্য নির্বাচন আটকে থাকবে না। নির্বাচন নির্বাচনের পথে চলবে, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে।

এইউএ/জেএইচ/আরআইপি