জামায়াত ছাড়লেই ফলপ্রসূ হবে জাতীয় ঐক্য

সায়েম সাবু
সায়েম সাবু সায়েম সাবু , জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৪ পিএম, ২৮ আগস্ট ২০১৮

গণতন্ত্র রক্ষা ও কল্যাণমূলক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে জাতীয় ঐক্য গড়া সময়ের দাবি বলে মন্তব্য করেছেন সংবিধানপ্রণেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। বিভিন্ন জোটের সমন্বয়ে ‘জাতীয় যুক্তফ্রন্ট’ গঠনের পরিকল্পনা অনেকটাই এগিয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট থেকে জামায়াতকে সরিয়ে দিলেই জাতীয় ঐক্য ফলপ্রসূ হবে। দেশ ও গণতন্ত্রের স্বার্থেই বিএনপি এখন জামায়াতকে ত্যাগ করবে বলে উল্লেখ করেন সুপ্রিম কোর্টের শীর্ষ এই আইনজীবী।

সরকারবিরোধী রাজনৈতিক দল ও জোট নিয়ে জাতীয় ঐক্য গঠনের যে আলোচনা রাজনীতির মাঠে তা নিয়েই জাগো নিউজের কাছে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন ড. কামাল হোসেন। তার প্রতিক্রিয়ায় জামায়াত প্রসঙ্গই গুরুত্ব পায়।

ড. কামাল বলেন, একটি জাতি ও দেশকে রক্ষা করতে আমাদের বৃহৎ স্বার্থকে অধিক গুরুত্ব দিতে হচ্ছে। জামায়াত নিয়ে মানুষের মনোভাব বুঝতে হবে। একটি দলের জন্য যদি বৃহৎ ঐক্য বাধাগ্রস্ত হয়, তাহলে অবশ্যই সেই বিষয়টি বিবেচনায় আনতে হবে।

‘জামায়াত ছাড়তে বিএনপির কাছে প্রস্তাব রেখেছেন কি না’- এমন প্রশ্নের জবাবে এই রাজনীতিক বলেন, ‘আমরা আলোচনা করছি ঐক্য গঠনের। আজও বৈঠকে বসা হবে। অনেক বিষয়েই আলোচনা হচ্ছে। জামায়াত সম্পর্কে আমাদের বক্তব্য স্পষ্ট। মহান মুক্তিযুদ্ধে জামায়াতের ভূমিকা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। এ ব্যাপারে আগেও বলেছি আমরা। জোট গঠনের ক্ষেত্রে জামায়াত নিয়ে ফের আলোচনা হবে এবং আমরা আশাবাদী বিএনপি এ বিষয়ে ইতিবাচক সাড়া দেবে।’

অন্য ইসলামিক দল জোটে টানার ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, জামায়াত নিয়ে আলোচনা হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের প্রশ্নে। অন্য ইসলামিক দলের ইতিহাস এবং তাদের গঠনতন্ত্রও পর্যালোচনা করা হবে। গণতন্ত্র ও সংবিধানের ওপর আস্থা রেখেই ঐক্য গঠন হবে।

ঐক্যের সফলতা নিয়ে তিনি বলেন, জনগণ পরিবর্তনের জন্য মুখিয়ে আছেন। আমরা পরিবর্তনের অঙ্গীকার নিয়ে ঐক্য করছি। আমাদের ভরসা জনগণ। জনগণের ক্ষমতায়নের জন্যই জাতীয় ঐক্যের পরিকল্পনা চলছে। আওয়ামী দুঃশাসন থেকে মানুষ পরিত্রাণ চাইছে। ঐক্য করার এখনই সময়। জাতীয় ঐক্যের সফলতা নিয়ে আমরা আশাবাদী।

এএসএস/জেডএ/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :