এরশাদ বন্দী, দাবি যুব সংহতি মহাসচিবের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:০৫ পিএম, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮
গত ৬ ডিসেম্বর হঠাৎ বনানী কার্যালয়ে এভাবে উপস্থিত হন এরশাদ

‘জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বাসায় বন্দী’ বলে দাবি করেছেন যুব সংহতির যুগ্ম-মহাসচিব জহির উদ্দিন।

রোববার সেগুনবাগিচায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রতীক বরাদ্দের আবেদন জমা দিয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘স্যার তো বন্দী, আমি এর বেশিকিছুই বলতে পারছি না। আমরা স্যারের হয়ে প্রতীক বরাদ্দের আবেদনপত্র জমা দিতে এসেছিলাম।’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানকে নিয়ে নানা গুঞ্জন শুরু হয়। এই তিনি অসুস্থ, সিএমএইচে আছেন আবার চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাচ্ছেন- নিজ দল থেকে এমন ঘোষণা এলেও হঠাৎ তিনি সশরীরে হাজির হন নেতাকর্মীদের মাঝে।

প্রায় ১৫ দিন পর গত ৬ ডিসেম্বর হঠাৎ বনানী কার্যালয়ের সামনে হাজির হন এরশাদ। গাড়িতে বসেই তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আজ বলতে এসেছি, আমাকে কেউ দমিয়ে রাখতে পারবে না। আমি এগিয়ে যাব। আমার ব্লাড শর্টেজ রয়েছে, বাসায় যাচ্ছি। আমার বয়স হয়েছে, চিকিৎসা করতে দেবে না। বাইরে যেতে দেবে না। মৃত্যুকে ভয় করি না।’

এরশাদ বলেন, ‘পুরনো মহাসচিবকে (এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার) ভালোবাসতাম। নতুন মহাসচিবকে (মসিউর রহমান রাঙ্গা) তোমরা ভালোবেস। সে নতুন, তাকে সাহায্য করো। ২৭ বছর ধরে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরেছি, পার্টি ছাড়িনি। সব নির্ভর করে তোমাদের ওপর। কেউ পার্টি ছেড়ে যেও না, আমাকে প্রতিশ্রুতি দাও।’

সে সময় এরশাদের কার্যালয়ের সামনে নেতাকর্মীরা স্লোগান দেন, ‘এরশাদের কিছু হলে জ্বলবে আগুন ঘরে ঘরে। অ্যাকশন, অ্যাকশন, ডাইরেক্ট অ্যাকশন। আওয়ামী লীগের দালালেরা হুঁশিয়ার সাবধান।’

সর্বশেষ গত ২০ ডিসেম্বর মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠানে কথা বলেন জাপা চেয়ারম্যান। এরপর থেকে কখনও বাসায় কখনও সিএমএইচ-এ ভর্তি তিনি। সংবাদকর্মীদের সামনেও আসেন না প্রাক্তন এ রাষ্ট্রপতি।

এআর/এমএআর/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :