এরশাদের আসন জাপার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৪৫ পিএম, ২৫ আগস্ট ২০১৯

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের বলেছেন, ‘রংপুর-৩ আসন জাতীয় পার্টির কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার আগেই আমরা একটি মনোনয়ন বোর্ড গঠন করেছি। তারাই যাচাই-বাছাই করে প্রার্থী নির্ধারণ করবে। রংপুর-৩ আসনটি জাতীয় পার্টির। এরশাদের এ আসনে জয়ী হতেই জাতীয় পার্টি নির্বাচন করবে।’

রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের অফিসে রোববার গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান তিনি।

এ সময় দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী বিরোধীদলীয় নেতা নির্বাচন করা হবে বলেও জানান জিএম কাদের।

এর আগে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কুলখানি বাস্তবায়ন করতে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

যৌথসভায় সভাপতির বক্তব্যে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, ‘৩১ আগস্ট সারাদেশের প্রতিটি থানা ও উপজেলায় পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কুলখানিতে কোরআন তেলাওয়াত, দোয়া মাহফিল ও দুস্থদের খাবার বিতরণ করা হবে।’

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘রংপুর-৩ আসনটি জাতীয় পার্টির দুর্গ। রংপুর-৩ আসনে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থীই বিজয়ী হবেন।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, এসএম ফয়সল চিশতী, শফিকুল ইসলাম সেন্টু, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান জহিরুল আলম রুবেল, আহসান আদিলুর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, সুলতান আহমেদ সেলিম, সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুল হক, মোস্তাফিজুর রহমান নাঈম, হাজি নাসির উদ্দিন সরকার, দফতর সম্পাদক সুলতান মাহমুদ, যুগ্ম দফতর সম্পাদক এমএ রাজ্জাক খান প্রমুখ।

গত ১৪ জুলাই রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তিনি রক্তে সংক্রমণসহ লিভার জটিলতায় ভুগছিলেন।

এরশাদের মৃত্যুর পর গত ১৬ জুলাই শূন্য ঘোষণা করা হয় জাতীয় সংসদের রংপুর-৩ আসন। শূন্য ঘোষিত এ আসনে আগামী তিন মাসের মধ্যে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সংবিধান অনুযায়ী কোনো সংসদীয় আসন শূন্য ঘোষণা করা হলে ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার বাধ্যবাকতা রয়েছে।

এইউএ/এনডিএস/পিআর