‘ব্যর্থ’ আখ্যা দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি বাম জোটের

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:১০ পিএম, ০৯ জুলাই ২০২০

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেককে ‘ব্যর্থ’ আখ্যা দিয়ে তার পদত্যাগ দাবি করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। সংগঠনটির নেতারা বলেছেন, এই স্বাস্থ্যমন্ত্রী ব্যর্থ। আজ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বেহাল দশা ফুটে উঠেছে। তারা বারবার বলে আসছিল, করোনা মোকাবিলায় তাদের প্রস্তুতি আছে, কিন্তু করোনা যখন সত্যিই এলো, দেখা গেল যে আসলে তাদের কোনো প্রস্তুতিই ছিল না।

বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে এ দাবি জানানো হয়। জোটের সমন্বয়ক বজলুল রশিদ ফিরোজের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে ওয়ার্কার্স পার্টি, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল- বাসদ (মার্কসবাদী), সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন ও কমিউনিস্ট লীগের নেতারা অংশ নেন।

জাহিদ মালেকের তীব্র সমালোচনা করে বজলুল রশিদ ফিরোজ বলেন, করোনা মোকাবিলায় একের পর এক কমিটি হয়েছে, ৪৩টির ওপর কমিটি হয়েছে, কিন্তু বেশিরভাগেরই কোনো কার্যক্রম নেই। কোনো কোনো কমিটির এখন পর্যন্ত একটি বৈঠকও হয়নি।

তিনি আরও বলেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় জাতীয় কমিটির সভাপতি। কিন্তু তিনি জানেন না যে, কীভাবে গার্মেন্টস খুলে দেয়া হয়। তিনি সংসদে দাঁড়িয়ে বলেন, স্বাস্থ্যকর্মীরা পিপিই পরতে জানেন না। এই ব্যর্থতা তো স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে তারই। অথচ এই নির্লজ্জ, বেহায়া স্বাস্থ্যমন্ত্রী এখনও বহাল তবিয়তে দায়িত্বে আছেন।

সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের আহ্বায়ক হামিদুল হক বলেন, শাসক শ্রেণির লুটপাটকারীরা শত শত কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এই স্বাস্থ্যমন্ত্রী টেন্ডারবাজি করেন, তিনি টেন্ডারবাজির হিসাব করেন। তার ছেলের নেতৃত্বে পিপিই দুর্নীতি হয়েছে, মাস্ক দুর্নীতি হয়েছে। মিঠু বাহিনীর সঙ্গে মিলে কোটি কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে। এই স্বাস্থ্যমন্ত্রী শুধু পদত্যাগ করলেই হবে না, সবাইকে গ্রেফতার করতে হবে। সবাইকে রিমান্ডে এনে তদন্ত করতে হবে।

পরে মানববন্ধন থেকে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অভিমুখে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু পুলিশি বাধার মুখে প্রেসক্লাব মোড়ে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

এফএইচএস/এমএসএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]