কিয়ামাতের দিন বিশ্বনবি যেখানে থাকবেন


প্রকাশিত: ১১:০১ এএম, ১০ আগস্ট ২০১৬

পরকালে বিচার দিবস নিয়ে সবাই চিন্তিত। সবারই একটাই ভরসা বিশ্বনবির শাফায়াত। যে দিন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ব্যতিত সকল নবি-রাসুলগণই নাফসি নাফসি করবে। আল্লাহ তাআলার দরবারে নিজেদের হিসাব প্রদানে থাকবে ভীত-সন্ত্রস্ত। সে বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর উম্মতের সহযোগিতায় তিন স্থানে থাকবেন। যা তুলে ধরা হলো-

Hadith-Inner

হজরত আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কাছে নিবেদন করলাম যে, তিনি যেন কিয়ামতের দিন আমার জন্য সুপারিশ করেন।

অতপর তিনি (রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বললেন, ঠিক আছে আমি সুপারিশ করব। আমি বললাম, হে আল্লাহর রাসুল! (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) আমি (সেদিন) আপনাকে কোথায় খোঁজ করব?

>> তিনি (বিশ্বনবি) বললেন, প্রথমে আমাকে পুলসিরাতের কাছে খুঁজবে। আমি বললাম পুলসিরাতে যদি আপনার সঙ্গে আমার সাক্ষাৎ না হয়?
>> তিনি (বিশ্বনবি) বললেন, তাহলে আমাকে মিযানের কাছে খুঁজবে। আমি আবার বললাম, মিযানের নিকটও যদি আপনার সাক্ষাৎ না পাই?
>> তিনি (বিশ্বনবি) বললেন, তাহলে হাউজে কাউসারের কাছে খুঁজবে। কারণ আমি সেদিন এই তিন স্থানের কোনো না কোনো স্থানে অবশ্যই উপস্থিত থাকব। (তিরমিজি, মুসনাদে আহমদ, মিশকাত)

পরিশেষে...
আলোচ্য হাদিস থেকে বুঝা যায় যে, দুনিয়াতে যারা বিশ্বনবির ওপর নাজিলকৃত কুরআন অনুযায়ী জীবন-যাপন করবে, সুন্নাতের আমল করবে। পরকালের কঠিন সময়ে তিনি তাদের জন্য এ তিন কঠিন স্থানে সুপারিশ করার জন্য তৈরি থাকবেন।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে কুরআন-সুন্নাহর ওপর আমল করে বিশ্বনবির সুপারিশের মাধ্যমে মুক্তি লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]