জেলায় জেলায় আঞ্চলিক ইজতিমার সময়সূচি


প্রকাশিত: ০৯:৩০ এএম, ০১ নভেম্বর ২০১৬

ঢাকার তুরাগ নদীর তীরে অনুষ্ঠিত বিশ্ব ইজতিমার ন্যায় বাংলাদেশের ৩২টি জেলায় অঞ্চলভিত্তিক ইজতিমা শুরু হয়েছে। বিশ্ব ইজতিমায় ভিড় কমাতেই কাকরাইলের মারকাজের তত্ত্বাবধানে এ ইজতিমা আয়োজনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। জেলাভিত্তিক ইজতিমা আয়োজনের অংশ হিসেবে গত ২০ অক্টোবর রাজশাহীতে এবং ২৭ অক্টোবর গাইবান্ধায় আঞ্চলিকভাবে ইজতিমা সম্পন্ন হয়েছে। সূচি অনুযায়ী ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে এ ইজতিমাগুলো সম্পন্ন হবে।

অঞ্চল ভিত্তিক ইজতিমা সম্পন্ন করতে প্রত্যেক অঞ্চলের তাবলিগের সদস্যরা স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে মাঠ, প্যান্ডেল, অস্থায়ী টয়লেট, অজুখানা ও গোসলের হাউজ তৈরির জন্য নিরলসভাবে কাজ করে চলছেন। তাদের কার্যক্রম সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে প্রশাসন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিন, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী, ছাত্র, শিক্ষক, শ্রমিক, পেশাজীবীসহ সর্বস্তরের মানুষ এ কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছে।

টঙ্গির তুরাগ নদীর তীরে প্রতি বছর একবার ইজতিমা অনুষ্ঠিত হতো। পর্যায়ক্রমে এ ইজতিমাকে দুই ভাগে ভাগ করার পরও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় বিঘ্ন ঘটে। যার প্রেক্ষিতে এ বছর থেকে টঙ্গির আদলে জেলাভিত্তিক তিন দিনের ইজতিমার আয়োজন করা হচ্ছে।

জেলাভিত্তিক ইজতেমাগুলো সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে প্রত্যেক জেলার জিম্মাদার সঙ্গীদের সঙ্গে কাকরাইল মারকাজের মুরুব্বিগণ বিশেষ পরামর্শ করেন।

জেলাভিত্তিক আঞ্চলিক ইজতেমার নির্ধারিত তারিখ হলো-
ঝিনাইদহ : ১৪-১৬ ডিসেম্বর ২০১৬
ভোলা : ২৯-৩১ ডিসেম্বর ২০১৬
সিলেট : ২৯-৩১ ডিসেম্বর ২০১৬
ফেনী : ১৬-১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

চট্টগ্রাম : ২২-২৪ ডিসেম্বর ২০১৬
গাইবান্ধা : ২৭-২৯ অক্টোবর ২০১৬
নেত্রকোনা : ২৬-২৮ জানুয়ারি ২০১৭
জামালপুর : ২২-২৪ ডিসেম্বর ২০১৬
ফরিদপুর : ৫-৭ জানুয়ারি ২০১৭

মাগুরা : ৫-৭ জানুয়ারি ২০১৭
খুলনা : ৯-১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
নরসিংদী : ২৬-২৮ অক্টোবর ২০১৬
নারায়ণগঞ্জ : ১৭-১৯ নভেম্বর ২০১৬
বগুড়া : ২৪-২৬ নভেম্বর ২০১৬

নীলফামারী : ১৬-১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
সিরাজগঞ্জ : ১৫-১৭ ডিসেম্বর ২০১৬
মাদারীপুর : ১৫-১৭ ডিসেম্বর ২০১৬
নাটোর : ২৩-২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
পিরোজপুর : ১৬-১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
লক্ষীপুর : ২৩-২৫ নভেম্বর ২০১৬

কুমিল্লা : ২৯-৩১ ডিসেম্বর ২০১৬
পটুয়াখালী : ২-৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
রাজশাহী : ২০-২২ অক্টোবর ২০১৬
নড়াইল : ১৭-১৯ নভেম্বর ২০১৬
চুয়াডাঙ্গা : ২৪-২৬ নভেম্বর ২০১৬

এমএমএস/এবিএস

আপনার মতামত লিখুন :