বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব থেকে তাবলিগে বের হলো ২৮৭১ জামাত

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৪৩ এএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২০

টঙ্গীর তুরাগ তীরে ৫৫তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হয়েছে ১২ জানুয়ারি। এটি ছিল আলমি শুরার সাথীদের ইজতেমা। এ বিশ্ব ইজতেমা থেকে সারাদেশের উদ্দেশে দেশি-বিদেশি মিলিয়ে দাওয়াত ও তাবলিগে বের হয়েছে ২ হাজার ৮৭১ জামাত। কাকরাইল মারকাজ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

দাওয়াত ও তাবলিগে বের হওয়া ২৮৭১ জামাতের মধ্যে ১ চিল্লা ও ৩ চিল্লার জন্য রয়েছে মোট ২৬০৫ দেশি জামাত। আর আরবি, উর্দু এবং ইংরেজি মিলিয়ে রয়েছে ১০৬ জামাত।

জামাতে যোগ দেয়া নতুন সাথীরা শিখবে দ্বীনের জরুরি বিষয়াবলী। নিজে যা শিখে অপরকে দাওয়াতের মাধ্যমে তা পৌঁছে দেয়। আর পুরাতন সাথীরা নিজেদের আমলকে পাকা-পোক্ত করবেন। তাদের জানার পরিধিকে আরো বাড়িয়ে আমলে অগ্রবতী হবেন।

মেহনতের মাধ্যমে নিজের ঈমানকে মজবুত করতে, নতুন সাথীদের দ্বীনে প্রতি দাওয়াত দিতে, আলেমদের তত্ত্বাবধানে ইলম শিখে তা মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিতেই বের হয়েছে এসব জামাত।

প্রতিবছরের মতো এ বছরও ২৮৭১ জামাতের নতুন সাথী, পুরাতন সাথী, আলেমগণ নিজেদের কল্যাণ এ উম্মতের ফায়দার জন্য ইজতেমা থেকে বেরিয়েছেন দ্বীনের দাওয়াত নিয়ে।

এদিকে মাস্তুরাতের জামাত বের হয়েছে ১১৪টি। বাংলাদেশ থেকে দেশের বাইরে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হয়েছে ৪৯টি জামাত।

বিশ্ব ইজতেমার ময়দান থেকেই দাওয়াত ও তবলিগে সাল, এক চিল্লা ও তিন চিল্লার জন্য বের হওয়া দেশি বিদেশি এসব জামাত দেশ-বিদেশে দ্বীন প্রচারে নিজেদের নিয়োজিত রাখবেন। বিশ্ব ইজতেমায় মুসল্লিদের উদ্দেশে দাওয়াতের গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরা হয়। পরবর্তীতে তারা ইজতেমা শেষে ইসলামের দাওয়াতের কাজে বের হন।

তাবলিগের শুরা সদস্যরা আশা প্রকাশ করেন, ‘আলেম-ওলামা ও পীর মাশায়েখদের অংশ গ্রহণে সামনের দিনগুলোতে দাওয়াত ও তাবলিগের কাজের গতি ও সমৃদ্ধি বৃদ্ধি পাবে।

এমএমএস/এমকেএইচ