বঙ্গবন্ধুকে জিজ্ঞাসা করলাম, লিডার আপনি চিন্তিত কেন?

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৪ পিএম, ১৬ মার্চ ২০২০

ড. কামাল হোসেন। বঙ্গবন্ধুর মন্ত্রিসভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশের সংবিধান প্রণেতা। বঙ্গবন্ধুর হাত ধরেই রাজনীতির পথচলা। দীর্ঘ পথপরিক্রমায় নানা ভাঙা-গড়ার সাক্ষীও বিশিষ্ট এ আইনজীবী। রাজনীতির পথে হাঁটছেন এখনও। আওয়ামী লীগ থেকে বেরিয়ে ‘গণফোরাম’ নামের নতুন দল গঠন করেন। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর সেই আদর্শ ধারণ করেই পথ চলেন বলে উল্লেখ করেন প্রবীণ এ রাজনীতিক।

মুজিববর্ষ ও রাজনীতির নানা প্রসঙ্গ নিয়ে জাগো নিউজের কাছে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন ড. কামাল হোসেন। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে রাজনৈতিক পথচলার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বলেন, স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে যখন দেশে ফিরছিলাম, তখন ঢাকার রাস্তায় লাখ লাখ মানুষ। এমন মানুষের সমাগম দেখে বঙ্গবন্ধুকে তখন চিন্তিত মনে হচ্ছিল। বঙ্গবন্ধুকে জিজ্ঞাসা করলাম, লিডার আপনি চিন্তিত কেন? তিনি বললেন, ‘দেখ কামাল, স্বাধীনতার জন্য সব বাঙালিকে ঐক্যবদ্ধ করতে পেরেছি। জানি না, সেই ঐক্য ধরে রাখতে পারব কি-না?’

jagonews24

স্বাধীনতার পর পাকিস্তান কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু যেদিন দেশে ফিরছিলেন, সেদিন ড. কামালও সঙ্গে ছিলেন। বঙ্গবন্ধু প্রসঙ্গে ড. কামাল বলেন, বঙ্গবন্ধু এ জাতিকে যতটুকু বুঝতে পেরেছিলেন, অন্য কোনো রাজনীতিক তা বুঝতে পারেননি। আমাদের সব অর্জন হয়েছে ঐক্যের মধ্য দিয়ে। সেই ঐক্য বঙ্গবন্ধু তার অসাধারণ নেতৃত্ব দিয়েই তৈরি করেছিলেন।

১৯৭০ সালের নির্বাচন প্রসঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হেনরি কিসিঞ্জার তৎকালীন পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া খানকে বলেছিলেন, ‘তুমি (ইয়াহিয়া) কী নির্বাচন করলে যে, পাকিস্তান ভাগ হয়ে গেল।’ ইয়াহিয়া খান বলেছিলেন, ‘গোয়েন্দারা আমাদের বুঝিয়েছিলেন যে, বাঙালি কখনও ঐক্যবদ্ধ হতে পারবে না। নির্বাচন দিলে তাদের মধ্যে আরও বিভাজন তৈরি হবে এবং আমাদের খেলতে আরও সুবিধা হবে। বঙ্গবন্ধু তার বিপরীত খেলায় জিতে গেলেন।’

jagonews24

বাংলাদেশের বর্তমান রাজনীতির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হারিয়ে আমরা দিশেহারা হলাম। আজও বাঙালি দিশেহারা। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে আমাদের রাজনীতির এ সংকট দেখতে হতো না। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে যোজন যোজন দূরত্বে খোদ আওয়ামী লীগও। আজ যে সংকট বিরাজমান, তার দায় আওয়ামী লীগেরই বেশি এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ না করার কারণেই। জনগণ সব ক্ষমতার মালিক— এটি বঙ্গবন্ধু সবসময় বলতেন। অথচ আওয়ামী লীগ এখন এ নীতিতে বিশ্বাস করে না।

আমরা সব বিভাজন ভুলে যদি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ অনুসরণ করতে পারতাম, তাহলে জনগণ সত্যিই দেশ ও ক্ষমতার মালিক হতেন। বড় কষ্ট হয় যখন দেখি, আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কথা বলে, আর কাজ করে তার উল্টো।

এএসএস/এমএআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]