আশা জাগিয়েও হতাশাই সঙ্গী হল নারী দলের

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৪৯ পিএম, ১৭ মে ২০১৮

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে প্রথমবারের মতো ম্যাচ জেতার মতো অবস্থা তৈরি করেছিল বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। কিন্তু শেষপর্যন্ত মারমুখী ব্যাটসম্যানের অভাবে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচেও পরাজিত দলেই থাকতে হলো রোমানা-ফারজানাদের। স্বাগতিকদের বিপক্ষে বাংলাদেশি নারীদের পরাজয়ের ব্যবধান ১৭ রানের।

দক্ষিণ আফ্রিকার করা ১২৭ রানের জবাবে খেলতে নেমে ৫ উইকেট হারিয়ে ১১০ রানে থেমেছে বাংলাদেশ নারী দলের ইনিংস। তৃতীয় উইকেটে সম্ভাবনা জাগিয়েও ম্যাচ জেতাতে পারেননি ফারজানা হক এবং রোমানা আহমেদ। ফলে ওয়ানডে সিরিজের ব্যর্থতার ধারা অব্যাহত থাকলো নারীদের।

রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা মোটেও ভালো করতে পারেনি বাংলাদেশি নারীরা। ইনিংসের পঞ্চম ওভারে মাত্র ১৪ রান তুলতেই সাজঘরে ফিরে যান শামীমা সুলতানা এবং সানজিদা ইসলাম। সেখান থেকে তৃতীয় উইকেটে ঘুরে দাঁড়ান ফারজানা এবং রোমানা। মাত্র ৬৮ বলে ৭২ রানের জুটি গড়েন এই দুজন।

তবে ইনিংসের ১৬তম ৮৬ রানের মাথায় একই ওভারে রোমানা এবং নিগার সুলতানা ফিরে গেলে চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। আউট হওয়ার আগে ৪১ বল খেলে ৩৬ রান করেন রোমানা। রোমানার বিদায়ে রান রেটের চাপ অনুভব করতে শুরু করে বাংলাদেশ।

চাপের বিরুদ্ধে লড়াই করতে ব্যর্থ হন ফারজানা। ১৮তম ওভারে তিনি সাজঘরে ফিরে যান ৩৫ রানের ইনিংস খেলে। শেষ দিকে পান্না ঘোষ এবং ফাহিমা খাতুন মিলে শেষ করেন ইনিংসের বাকি ওভার। বাংলাদেশের ইনিংস থামে ১১০ রানে। পান্না ৮ এবং ফাহিমা ১২ রানে অপরাজিত থাকেন। স্বাগতিকদের পক্ষে মাত্র ১৯ রান খরচায় ৩ উইকেট নেন শাবনিম ইসমাইল।

এর আগে কিম্বার্লিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে টসে জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা। ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত সূচনা করেন দুই ওপেনার লিজল লি এবং লরা ওলভার্ট। উদ্বোধনী জুটিতে মাত্র ৯ ওভারেই ৭৪ রান যোগ করেন এই দুই ব্যাটসম্যান।

এরপরই দৃশ্যপটে আবির্ভুত হন বাংলাদেশের দুই স্পিনার কুবরা এবং রোমানা। মাত্র ৯ ওভারে বিনা উইকেটে ৭৪ রান করা স্বাগতিকরা পরের ৪ ওভারে মাত্র ১২ রান তুলতেই হারায় ৫টি উইকেট। শুরুটা করেন অধিনায়ক রোমানা। ডানহাতি অফস্পিনে ভাঙেন ৭৭ রানের উদ্বোধনী জুটি। ১০ম ওভারে স্টাম্পিং হয়ে সাজঘরে ফেরেন ৩০ রান করা ওলভার্ট।

পরের ওভারে আরেক ওপেনার লিজলকে ফেরান কুবরা। ৩৮ বলে ৬ চার এবং ১ ছক্কার মারে ৪৬ রান করেন লিজল। ১৩তম ওভারে জোড়া আঘাত হানেন কুবরা। মাঝে ১২তম ওভারে প্রতিপক্ষ অধিনায়ক কোল টাইরনকে সাজঘরের পথ দেখান রোমানা। ৮৬ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে চলে যায় স্বাগতিকরা।

সেখান থেকে সান লুসের ব্যাটে ভর করে লড়াই করার মতো সংগ্রহ পায় তারা। অপরাজিত ইনিংস ২৩ বল খেলে ২৮ রান করেন লুস। স্বাগতিকদের ইনিংস থামে ১২৭ রানে। বাংলাদেশের পক্ষে ৪ ওভারে মাত্র ২৩ রান খরচায় ৩টি উইকেট নেন কুবরা। এছাড়া রোমানা ২টি এবং সালমা খাতুন নেন ১টি উইকেট।

এসএএস/পিআর