রশিদ-মুজিবুরকে সামলানোর শক্তি আছে বাংলাদেশের : রিয়াদ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:১৬ পিএম, ১৭ মে ২০১৮

এই সেদিনও বলা যেত বাংলাদেশ টেস্ট খেলুড়ে দল, আর আফগানিস্তান আইসিসির সহযোগি সদস্য। তখন লড়াইটা ছিল টেস্ট খেলুড়ে দেশের সঙ্গে আইসিসির সহযোগি সদস্যের; কিন্তু এখন আর তা বলা যাবে না।

অভিষেক না হলেও আফগানিস্তানও এর মধ্যে টেস্ট মর্যাদা পেয়ে গেছে। অর্থাৎ আগামী ৩ জুন ভারতের দেরাদুনে আফগানদের সাথে যে টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হচ্ছে, তা এখন তাই আর টেস্ট খেলুড়ে দেশ বাংলাদেশের সাথে আইসিসির সহযোগি সদস্য আফগানিস্তানের লড়াই নয়। দুই টেস্ট খেলুড়ে দেশের লড়াই।

শুধু তাই নয়, আফগানিস্তান এখন টি টোয়েন্টি র্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে। আফগানদের র্যাংকিং ৮। আর বাংলাদেশ আছে দুই ধাপ পিছনে; দশ নম্বরে। র্যাংকিংয়ে এগিয়ে থাকার পাশাপাশি সীমিত ওভারের ফরম্যাটেও আফগানরা বেশ ভাল দলের তকমাও গায়ে এঁটে ফেলেছে। সেই দলের সাথে আর মাত্র দুই সপ্তাহ পর বাংলাদেশের লড়াই।

ওই সিরিজে কেমন করবে বাংলাদেশ? রশিদ খানের লেগ স্পিন আর বৈচিত্রে ভরা অফ স্পিনার মুজিবুর রহমানের তীক্ষ্ন বোলিংয়ের বিপক্ষে টাইগাররা কতটা কুলিয়ে উঠতে পারবে? অনেকের মনেই এমন প্রশ্ন উঁকি দিচ্ছে। আজ প্রায় একই প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছিলেন জাতীয় দলের সিনিয়র ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। মিডিয়ার সাথে আলাপে রিয়াদও মানলেন, আফগানদের সাথে টি-টোয়েন্টি সিরিজ হবে চ্যালেঞ্জিং।

মাহমুদউল্লাহ স্বীকার করেছেন, আফগান বোলিংয়ে বৈচিত্র্যে ভরপুর। সেখানে ব্যাটসম্যানদের দায়িত্ব নিয়ে খেলতে হবে। তাই তো তার মুখে এমন কথা, ‘আমার মনে হয় খুব ভাল একটা চ্যালেঞ্জিং সিরিজ হবে আমাদের জন্য। ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি, টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বড় দল ছোট দল বলতে কিছু নেই। নির্দিষ্ট দিনে যে কোন দল যে কাউকে হারিয়ে দিতে পারে। আপনি যদি ভাল পারফর্ম করেন তাহলে নির্দিষ্ট দিনে আপনি যে কাউকে হারাতে পারবেন।’

Team-bd

এ কারণেই নিজেদেরকে ভালো ক্রিকেট খেলার তাগিদ দেন রিয়াদ। তিনি বলেন, ‘বলার অপেক্ষা রাখে না, আমাদের ভাল ক্রিকেট খেলতে হবে। আফগানিস্তান বলে কথা নেই। ভারত কিংবা অস্ট্রেলিয়া- যে কারো সাথেই খেলি না কেন, ভাল খেলার বিকল্প কোন পথ নেই। জিততে হলে সাফল্য পেতে হলে- ভাল খেলাই শেষ কথা। এই ছোট ফরম্যাটে যেহেতু কামব্যাক করার সুযোগ খুবই কম, তাই শুরুটা আমাদের ভাল করতে হবে। প্রতিটি সেক্টরে আমাদের ভাল করতে হবে।’

আফগানদের সাথে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ কি? এ প্রশ্নের জবাবে রিয়াদের মূল কথা হলো, আসলে বাংলাদেশের মুল শক্তি হলো ব্যাটিং। টাইগারদের ব্যাটিং গভীরতাই বেশি। তাই ব্যাটিংয়ের ওপরই বেশি জোর দিতে হবে।

তিনি বলেন, ‘আমি যেটা আগে বললাম, আমাদের ব্যাটিং গভীরতা যেহেতু আছে, সেটার উপরে আমাদের জোর দিতে হবে। আমাদের বোলিং বিভাগও ভাল করছে। সাকিব আছে, অপু আছে, মিরাজ আছে; আমাদের বোলিংয়েও ভ্যারাইটি আছে। যদি বোলিং শক্তির কথা বলেন, ওদের শক্তি আর আমাদের শক্তি ভিন্ন। ওটা নিয়ে বরং মাথা না ঘামিয়ে, আমরা আমাদের শক্তিগুলোর দিকে ফোকাস করে যেন ভালো করতে পারি। যেভাবে নিদাহাস ট্রফিতে ক্যালকুলেটিভ রিস্ক নিয়ে খেলেছি, সেই জিনিসগুলো যদি আবারও প্রয়োগ করতে পারি তাহলে ইতিবাচক ফলাফল আশা করতে পারি।’

রশিদ খানকে খেললেও আরেক সাড়া জাগানো স্পিনার মুজিবুর রহমানকে আগে খেলার অভিজ্ঞতা নেই বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানের। তাই মুজিবুরের ভিডিও ক্লিপ্স দেখে তাকে রিড করার চিন্তা-ভাবনা চলছে। রিয়াদের কথা, ‘আমরা অলরেডি ভিডিও ফুটেজ দেখেছি। যদিও আমি মুজিবুরকে এখনও ফেস করিনি। রশিদ খানকে খেলা হয়েছে। এর আগে যখন হোম কন্ডিশনে আফগানিস্তানের সাথে খেলেছি, তখন ওই লেগিকে খেলেছি আমরা।’

এদিকে রিয়াদের ধারণা ও বিশ্বাস আফগানিস্তানের বোলিংয়ে যতই ধার থাকুক না কেন, তা সামলানোর মত গভীরতা আছে বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানদের। তার কথা, ‘আমার মনে হয় ওদের (আফগানদের) বোলিং অ্যাটাকের যে ভ্যারাইটি আছে, আমাদের ব্যাটিং ডেপথের ওই ক্যাপাবিলিটি আছে, যা দিয়ে ওদের বোলারদের ফেস করা সম্ভব। এখন মূল কাজ হলো, সঠিক সময়ে সঠিকভাবে নিজের মেলে ধরা।’

এআরবি/আইএইচএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :