উইকেট রেখেও পুঁজিটা বড় হলো না রাজশাহীর

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:১৫ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০১৯

হাতে উইকেট ছিল। কিন্তু সেট হয়ে বেশ কয়েকজন ব্যাটসম্যান আউট হয়ে যাওয়ায় খেলায় ছন্দটা ধরে রাখতে পারেনি রাজশাহী কিংস। ঢাকা ডায়নামাইটসের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রানেই থেমেছে মিরাজদের ইনিংস। অর্থাৎ জিততে হলে ঢাকাকে করতে হবে ১৩৭ রান।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খেয়েছে রাজশাহী কিংস। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে ১১ বল খেলে মাত্র ১ রান করে ফেরেন অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ।

দ্বিতীয় উইকেটে অবশ্য এই ধাক্কা সামলে উঠেছিলেন শাহরিয়ার নাফীস আর মার্শাল আইয়ুব। তবে ২৭ বলে ২৫ রান করে নাফীস ভুল করে বসেন। সুনিল নারিনকে তুলে মারতে গিয়ে লং অনে ক্যাচ হন এই ওপেনার।

ওই ওভারেই এক বল বিরতি দিয়ে ভয়ংকর হয়ে উঠা মার্শাল আইয়ুবকেও ফিরিয়ে দেন নারিন। মার্শাল ৩১ বলে ৩ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় করেন ৪৫ রান।

চতুর্থ উইকেটে ৩৮ রানের আরেকটি জুটি গড়েন জাকির হাসান আর রায়ান টেন ডেসকাট। ১৮ বলে ১টি করে চার ছক্কায় ২০ রান করে আল ইসলামের শিকার হন জাকির। এর দুই রানের ব্যবধানে ডেসকাটকেও (১৬ বলে ১৬) ফিরিয়ে রাজশাহীকে বিপদে ফেলে দেন নারিন।

ইনিংসের ১৯তম ওভারে সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণিতে নুরুল হাসান সোহান দুর্দান্ত এক স্ট্যাম্পিং করেন। সেকুগে প্রসন্ন সাজঘরের পথ ধরেন মাত্র ২ রানেই। শেষ পর্যন্ত আর বড় স্কোর গড়া সম্ভব হয়নি রাজশাহীর। ৮ বলে ৮ রানে অপরাজিত থাকেন জঙ্কার। উদানা করেন ৪ বলে ৩ রান।

ঢাকার পক্ষে বল হাতে সবচেয়ে সফল সুনিল নারিন। ৪ ওভারে ১৯ রানে ৩টি উইকেট নিয়েছেন ক্যারিবীয় এই স্পিনার।

এমএমআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]