ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত ক্রিকেটার মোশাররফ রুবেল

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:৫০ পিএম, ১০ মার্চ ২০১৯

জাতীয় দলের ক্রিকেটার মোশাররফ রুবেল অসুস্থ। ৩৭ বছর বয়সী এ বাঁ-হাতি স্পিনারের ব্রেন টিউমার ধরা পড়েছে। রাজধানীর আসগর আলী হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা সিটি স্ক্যানের পর তার ব্রেন টিউমার হয়েছে বলে জানান।

সপ্তাহখানেক আগে ব্রেন টিউমার ধরা পড়ার পর মোশাররফ রুবেল উন্নত চিকিৎসার জন্য ১৩ মার্চ সিঙ্গাপুর যাচ্ছেন বলে জানান। সিঙ্গাপুরের বিশ্বখ্যাত মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে তার চিকিৎসা এবং প্রয়োজনে অস্ত্রোপচার হবে।

মোশাররফ রুবেলের ঘনিষ্ঠ সূত্র জাগো নিউজকে জানিয়েছে, ‘চিকিৎসকরা সিটি স্ক্যানের পর ব্রেনে টিউমারের অস্তিত্ব খুঁজে পেয়েছেন। তবে সেটা প্রাথমিক পর্যায়ে আছে বলে আশ্বস্ত করেছেন।’

মোশাররফ রুবেল জাগো নিউজকে বলেন, ‘হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ার পর ডাক্তারের কাছে যাই। সেখানেই পরীক্ষা-নীরিক্ষার পর ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে। তবে এখনও প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। আশা করছি, দ্রুত অস্ত্রোপচার করাতে পারলে আল্লাহ সুস্থ করে দেবেন। সিঙ্গাপুরের ভিসা করতে দিয়েছি। সম্ভবত ১৩ মার্চ সিঙ্গাপুর যেতে পারবো।’

মোশাররফ রুবেলের খুব কাছের বন্ধুর কাছ থেকে জানা গেছে, গত জানুয়ারিতে বিপিএলের সময় প্রথম অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন মোশাররফ রুবেল। বিপিএল চলাকালীন টিম হোটেলে এক রাতে ঘুমের ঘোরে অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলেন তিনি। যে রাতে তিনি অজ্ঞান হন, সে রাতে তার রুমমেট ছিলেন আরেক সিনিয়র ক্রিকেটার জিয়াউর রহমান জিয়া। পরে তাকে হাসপাতালে নেয়ার পর আবার জ্ঞান ফিরে অসে।

কিন্তু বিপিএলের পর অল্প সময়ের ব্যবধানে কয়েক দিন আবার অজ্ঞান হয়ে পড়লে ডাক্তারের পরামর্শে তার মাথায় সিটি স্ক্যান করানো হয়। সেই সিটি স্ক্যানেই ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে। তবে মোশাররফ রুবেলের ঘনিষ্ঠ সূত্রের দাবি, ‘চিকিৎসকরা জানিয়েছেন টিউমারটি প্রাথমিক পর্যায়ে। আশা করা যায় সার্জারির পর সুস্থ হয়ে উঠবেন তিনি।’

সৃষ্টিকর্তা তার সহায় হোন। জাগো নিউজ পরিবার ক্রিকেটার মোশাররফ রুবেলের আরোগ্য কামনা করছে।

প্রসঙ্গত জাতীয় দলের হয়ে ৫টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন মোশাররফ রুবেল। ৪টি উইকেটও রয়েছে তার নামের পাশে। সেরা বোলিং ২৪ রানে ৩ উইকেট। ২০০৮ সালের ৯ মার্চ চট্টগ্রামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক হওয়া মোশাররফ রুবেল ২০১৬ সালের ৭ অক্টোবর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ওয়ানডে খেলেছেন।

এআরবি/আইএইচএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :