ব্রডকে মেয়ে ভেবেছিলেন অ্যান্ডারসন

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪০ এএম, ২৩ মে ২০১৯

‘ওহ মাই গড, কি সুন্দরী!’-স্টুয়ার্ট ব্রডকে প্রথম দেখে জিমি অ্যান্ডারসনের অভিব্যক্তি ছিল এমন। সোনালি উড়ুউড়ু চুল, হৃদয়কাড়া নীল চোখ আর শরীরের গড়ন দেখে তাকে মেয়ে ভেবেই ভুল করে বসেছিলেন টেস্টে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ এই উইকেটশিকারি।

সম্প্রতি নিজের লেখা বই ‘বল.স্লিপ.রিপিট’-এ এমন তথ্য ফাঁস করেছেন অ্যান্ডারসন। ইংলিশ এই পেসার তার দীর্ঘদিনের বোলিং সঙ্গীকে নিয়ে লিখেছেন, ‘যখন আমি প্রথম স্টুয়ার্ট ব্রডকে ড্রেসিংরুমে হাঁটতে দেখি, তার উড়ুউড়ু সোনালি চুল, হৃদয়কাড়া নীল চোখ আর পারফেক্ট ফিগার দেখে ভেবেছিলাম : হায় ঈশ্বর, সে কি সুন্দরী! আমরা দুজন একসঙ্গে ১০০০ হাজার উইকেট নিয়েছি, এটা আসলে অবিশ্বাস্য।’

দুজনের স্কিল আলাদা হওয়ায় কখনই ব্রডকে প্রতিদ্বন্দ্বি মনে হয়নি অ্যান্ডারসনের। বরং জুটি গড়ে বল করতে দুজনের মধ্যে বোঝাপড়াটা কেমন ছিল জানালেন তিনি এভাবে, ‘আমাদের মধ্যে সেই মানসিকতাটা ছিল জুটি গড়তে যেটা প্রয়োজন। নিজেদের মধ্যে কথা বলা আমাদের খুব সাহায্য করেছে-'এটা চেষ্টা করব?' 'না, পরিকল্পনা মতো বল করো'। আমরা সবসময়ই একে অন্যের বিষয়গুলো দেখভাল করেছি।’

ব্রডকে দেখে শুরুতে অ্যান্ডারসনের আরেকটা কথা মনে হতো। ইংলিশ পেসার বলেন, ‘প্রথমে আমার একটা ধারণা ছিল, ব্রড কিছুটা দুর্বল কোমল প্রকৃতির। তবে সে এমন নয়। সে কঠোর পরিশ্রম করে।’

অ্যান্ডারসন জানিয়েছেন, তাদের দুজনের মধ্যে একটা বিষয়ে দারুণ মিলও আছে। তার ভাষায়, ‘আমাদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়ে বেশ মিল আছে। সবাই প্র্যাকটিসের জন্য সকালে উঠতে চায়। ব্রডি আর আমি চাই আরও আধা ঘন্টা শুয়ে থাকতে। যতক্ষণ সম্ভব শুয়ে থাকার চেষ্টা করি আমরা।’

এমএমআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]