মাঠের বাইরে মানুষ আর্চারকে কয়জন চেনেন?

আরিফুর রহমান বাবু
আরিফুর রহমান বাবু আরিফুর রহমান বাবু , বিশেষ সংবাদদাতা লর্ডস, লন্ডন থেকে
প্রকাশিত: ১২:০০ এএম, ১৪ জুলাই ২০১৯

নিউজিল্যান্ড যদি হয় কেন উইলিয়ামসনের চওড়া ব্যাটের সঙ্গে তিন ফাস্ট বোলার লকি ফার্গুসন, ট্রেন্ট বোল্ট ও ম্যাট হেনরি নির্ভর; তাহলে ইংলিশরা অতি অবশ্যই তিন উইলোবাজ জো রুট, জেসন রয়, জনি বেয়ারষ্টো নির্ভর।

এর বাইরে স্বাগতিকদের আর একজন পারফরমারের দিকে চোখ সবার। তিনি জোফরা আর্চার- এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম আলোচিত পারফরমার। এখনও পর্যন্ত ১০ ম্যাচে ১৯ উইকেট শিকারি এ কৃষ্ণকায় ফাস্ট বোলার। প্রচন্ড গতির সঙ্গে সুইং এবং নিখুঁত ইয়র্কার ছুড়ে অনেক বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যানের মাথা খারাপ করে দিয়েছেন এ আর্চার।

সবচেয়ে বড় তথ্য হলো, ১০ ম্যাচে গড়ে প্রায় দুটি (১.৯০) উইকেটে পেলেও এখন পর্যন্ত কোন ম্যাচেই আর্চারের ঝুলিতে পাঁচ বা চার উইকেটও জমা পড়েনি। এবারের বিশ্বকাপে আর্চারের সেরা বোলিং ফিগার ৩/৩৭। ওভার পিছু রান দেয়াতেও ফ্রন্টলাইন বোলারদের যে কারও চেয়ে কৃপণ (৪.৬১) এই ফাস্ট বোলার।

তাকে নিয়ে রাজ্যের আগ্রহ বর্তমান প্রজন্মের। মাঠে তাকে যেমন দেখায়, তার হাঁটা-চলা, গতিবিধি এবং শরীরী অভিব্যক্তি যেমন, মাঠের বাইরে আর্চার কেমন প্রকৃতির? খুব জানতে ইচ্ছে করছে তাই না?

তাহলে শুনুন, আর্চার ব্যক্তিজীবনে এবং মাঠের বাইরে খুবই কোমলমতি। তার সম্পর্কে কিছু বলতে বলা হয়েছিল ইংলিশ ক্যাপ্টেন মরগ্যানকে। মরগ্যান জানালেন, ‘জোফরা আর্চার এমনিতে খুব রিল্যাক্সড থাকে। একদম ঠান্ডা প্রকৃতির। হয়তো বা ড্রেসিংরুমে ততটা ঠান্ডা নয়। সেদিক থেকে ক্রিস ওকস সবচেয়ে ঠান্ডা। তবে আর্চারও খুব নির্ভার থাকে। তেমন কিছু করতে পছন্দ করে না। সে বয়সে তরুণ এবং খেলাটা উপভোগ করে।’

এআরবি/এসএএস

আপনার মতামত লিখুন :