তামিম-মুশফিককে ছাড়া টি-টোয়েন্টিতে কেমন করবে বাংলাদেশ!

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:২১ পিএম, ২২ জুলাই ২০২১

এক ম্যাচের টেস্ট সিরিজে বড় ব্যবধানেই জয় এসেছে। ওয়ানডে সিরিজেও জয়ের ব্যবধান ৩-০। অর্থ্যাৎ, স্বাগতিক জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করে ছেড়েছে তামিম ইকবালের দল। এবার সামনে টি-টোয়েন্টি সিরিজ। মুমিনুল পেরেছেন, তামিম পেরেছেন, এবার পরীক্ষা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের। তিনি পারবেন তো, ৩-০ ব্যবধানে জয় এনে দিতে!

কিন্তু মুমিনুল আর তামিম ইকবাল যাদের পেয়েছেন, তাদের সবাইকে কিন্তু দলে পাচ্ছেন না মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বিশেষ করে টেস্ট সিরিজ খেলেছেন তামিম-মুশফিক দু’জনই। কিন্তু বাবা-মা করোনা আক্রান্তের খবর শুনে ওয়ানডে সিরিজ শুরুর আগেই দেশে ফিরে আসেন মুশফিকুর রহীম।

তামিম ইকবাল মুশফিককে ছাড়াই খেলেছেন ওয়ানডে সিরিজ। কিন্তু এখানেও দেখা গেছে বিপত্তি। কাঁধের ইনজুরির কারণে অন্তত দুই মাসের জন্য দল থেকে ছিটকে পড়েছেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। শেষ দুটি ওয়ানডে তিনি খেলেছেন ইনজুরিকে সঙ্গী করে, অনেকটা ঝুঁকি নিয়েই।

কিন্তু টি-টোয়েন্টি তিনি খেলতে পারছেন না। এর অর্থ, দলের দুই সিনিয়র সদস্য এবং নিয়মিত পারফরমার তামিম-মুশফিককে ছাড়াই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে খেলতে নামতে হবে বাংলাদেশকে। বিশেষ করে বললে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে।

টি-টোয়েন্টির এই ম্যাচটি বাংলাদেশের সামনে মাইলফলকেরও বটে। কারণ, টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে এবা বাংলাদেশের শততম ম্যাচ। ওয়ানডে এবং টেস্টের শততম ম্যাচকে জয়ের রঙে রাঙিয়েছিল বাংলাদেশ। এবার টি-টোয়েন্টির শততম ম্যাচে মাহমুদউল্লাহর সামনে তাই বড় একটি চ্যালেঞ্জ এসে দাঁড়িয়েছে। তিনি পারবেন তো বাংলাদেশকে জয় উপহার দিতে!

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ১৬টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার কথা বাংলাদেশের। যার প্রথমটিতে আজ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। বিকাল ৪টা ৩০ মিনিটে শুরু হওয়ার কথা এই ম্যাচটি। বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ আরও টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং ইংল্যান্ডের বিপক্ষে।

তামিম না থাকার কারণে আজ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ব্যাট হাতে ইনিংস ওপেন করার সম্ভাবনা রয়েছে লিটন দাস এবং মোহাম্মদ নাঈমের। সাকিব আল হাসান এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ মিডল অর্ডার নিয়ন্ত্রণ করবেন। টিম ম্যানেজমেন্ট আস্থা রাখতে পারেন বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপের ওপর। কারণ, এরপর আফিফ হোসেন ধ্রুব, নুরুল হাসান সোহান এবং মেহেদী হাসান মিরাজরা রয়েছেন। স্লগ ওভারে এরা নিজেদেরকে ব্যাট হাতে মেলে ধরতে পারবেন, এ বিশ্বাস আছে সবার।

এছাড়া চারজন পেসার নিয়ে মাঠে নামারও সম্ভাবনা রয়েছে আজ। এর মধ্যে বাঁ-হাতি দু’জন। মোস্তাফিজুর রহমান এবং শরিফুল ইসলাম। এ দু’জনের অন্তর্ভূক্তি তো প্রায় নিশ্চিত। ব্যাকআপে সৌম্য সরকার, শামীম হোসেন পাটোয়ারি, নাসুম আহমেদ এবং আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের মত ক্রিকেটাররা রয়েছেন।

তবুও মাহমদুউল্লাহ অভাববোধ করবেন তামিম এবং মুশফিকের। কারণ, অভিজ্ঞতার বেশ মূল্য আছে। অন্যদিকে জিম্বাবুয়ে যখন টেস্ট এবং ওয়ানডে সিরিজ হেরেছে, তখন তারা টি-টোয়েন্টিতে কামব্যাক করার চেষ্টা করবে, এটাই স্বাভাবিক। সে ক্ষেত্রে শেষ মুহূর্তে তারা মরণকামড় বসাবে বাংলাদেশের ওপর। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ কতটা পারবেন, সেটা বোঝা যাবে ম্যাচ শুরু হওয়ার পরই।

আইএইচএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]