মেসির গোল বাতিলের বিনিময়ে গোল লাইন প্রযুক্তি

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০৮ এএম, ২৮ নভেম্বর ২০১৭

ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ ছিল বার্সেলোনার। ম্যাচটি জিততে পারেনি বার্সেলোনা। ড্র হয়েছে ১-১ গোলে। তবে ম্যাচটিতে লিওনেল মেসি দারুণ এক গোল করলেও সেটি বাতিল করে দেন রেফারি। রেফারির যুক্তি সেটি গোল হয়নি। কিন্তু মেসির যুক্তি ছিল সেটি গোল লাইন পার হয়ে ভেতরেও প্রবেশ করেছিল।

মেসির এই গোল নিয়েই এখন তোলপাড় পুরো স্প্যানিশ ফুটবলে। মেসি এবং তার দল বার্সেলোনার দাবি গোলটি ছিল একেবারেই স্পষ্ট। রেফারি ইচ্ছা করেই মেসি এবং বার্সার গোল বাতিল করে দিয়েছেন। এ নিয়ে যখন তোলপাড় শুরু হয়েছে, তখন লা লিগা কর্তৃপক্ষও বিষয়টা নিয়ে ভাবতে শুরু করে দিয়েছে। শুধু তাই নয়, এই গোল বিতর্ক থেকেই লা লিগায় গোল লাইন প্রযুক্তি ব্যবহারের বিষয়ে ভাবতে শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ এবং আগামী মৌসুমেই গোল লাইন প্রযুক্তি (ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি- ভিএআর) চালু করা হবে।

লা লিগা সভাপতি হ্যাভিয়ের তেবাস জানিয়ে দিয়েছেন, ‘এ ধরনের ভুল এড়াতে আগামী মৌসুম থেকে লা লিগায় ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর) পদ্ধতি চালু করা হবে।

messi

রোববার রাতে ভ্যালেন্সিয়ার বিরুদ্ধে বার্সার ম্যাচে ৩০ মিনিটের সময় মেসির শট গোলরক্ষক নরবার্তো মুরারা নেতোর হাত ফস্কে গোললাইন পেরিয়ে যায়। টেলিভিশন রিপ্লেতেও স্পষ্ট দেখা গেছে, গোললাইনের ভেতর থেকেই বল বের করছেন নেতো; কিন্তু লাইন্সম্যান গোল বাতিল করে দেন।

লা লিগা প্রেসিডেন্ট হ্যাভিয়ের তেবাস নিজেও স্বীকার করলেন মেসির নেয়া সেই শটটিতে গোল হয়েছিল। তিনি বলেন, ‘স্পেনসহ সারা বিশ্বের কোটি কোটি সমর্থক গোলটি দেখেছে। আমি যদি বলি এটা গোল ছিল না, তবে আপনারা বলবেন আমি অন্ধ। নিশ্চিতভাবেই ওটা গোল ছিল। আমরা আশা করছি, আগামী মৌসুম থেকে ভিএআর প্রযুক্তির মাধ্যমে আমরা এমন সমস্যার সমাধান করতে পারব।’

গোল বাতিল করার কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে মেসি সাইডলাইনের পাশে গিয়ে লাইন্সম্যানের সঙ্গে তর্ক শুরু করেন; কিন্তু তাতেও সিদ্ধান্ত বদলাননি লাইন্সম্যান। ম্যাচের পর বার্সা কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে ক্ষুব্ধ কণ্ঠে বলেছেন, ‘পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছিল ওটা গোল ছিল।’

বার্সা ডিফেন্ডার জর্দি আলবা বলেন, ‘মারাত্মক ভুল করেছেন রেফারি। মাঝমাঠে দাঁড়িয়েও আমি স্পষ্ট দেখেছি, বলটা গোললাইন পেরিয়ে গিয়েছিল। শুধু তাই নয়, প্রধমার্ধ শেষে ড্রেসিংরুমের টিভিতে বারবার রিপ্লেও দেখেছি। বল যে গোললাইন পেরিয়ে গিয়েছিল, তা নিয়ে কোনো সংশয় নেই।’

সোশ্যাল মিডিয়ায় রেফারি এবং লাইন্সম্যানের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ঝড় উঠেছে। গত মৌসুমেও লা লিগায় একই ঘটনার শিকার হয়েছিল বার্সেলোনা। রিয়াল বেটিসের বিরুদ্ধে এমনই একটি গোল বাতিল হয়েছিল তাদের। সেই ম্যাচও শেষ হয়েছিল ১-১ ড্রয়ের কারণে।

আইএইচএস/আইআই

আপনার মতামত লিখুন :