তিন ম্যাচে ২৪ গোল তহুরা-শামসুন্নাহারদের

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:৩৬ পিএম, ০১ এপ্রিল ২০১৮
তিন ম্যাচে ২৪ গোল তহুরা-শামসুন্নাহারদের

চার মাসের মাথায় আরেকটি ট্রফি জিতলো অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল দল। ডিসেম্বরে ঢাকায় অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৫ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জেতা বাংলাদেশের মেয়েরা এবার জিতলো হংকংয়ে জকি ক্লাব গার্লস ইন্টারন্যাশনাল ইয়ুথ আমন্ত্রণমূলক ফুটবল টুর্নামেন্ট।

মেয়েদের বয়সভিত্তিক ফুটবলে এটি বাংলাদেশের পঞ্চমবারের মতো কোনো আসরের সেরা হওয়া। এর মধ্যে তিনটি এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) আয়োজিত। ২০১৫ সালে নেপালে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ আঞ্চলিক পর্বে। একই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তাজিকিস্তানে ২০১৬ সালে। একই বছর সেপ্টেম্বরে ঢাকায় অনুষ্ঠিত এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ আঞ্চলিক পর্বও চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশের মেয়েরা।

হংকংয়ের টুর্নামেন্টের আগে বাংলাদেশ অনুশীলন করে জানুয়ারি থেকে। নিবিড় প্রস্তুতির ফলই বাংলাদেশের মেয়েরা পেয়েছে বছরের প্রথম টুর্নামেন্টে। চার জাতি টুর্নামেন্টে তিন ম্যাচেই প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দিয়ে শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পড়ে সোমবার ঘরে ফিরছে মারিয়া মান্দারা।

বাংলাদেশ এ টুর্নামেন্টে তিন ম্যাচে গোল করেছে ২৪ টি। মাত্র দুটি গোল বাংলাদেশের জালে দিতে পেরেছে প্রতিপক্ষ। প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ ১০-১ গোলে হারিয়েছে মালয়েশিয়াকে। পরের ম্যাচে ইরানকে ৮-১ গোলে হারানোয় চ্যাম্পিয়ন হতে বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল ড্র।

ম্যাচের আগের তিন বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন বলেছিলেন, ড্র নয়, জিতেই চ্যাম্পিয়ন হতে চান তারা। তার প্রত্যাশা পূরণ করেছেন তহুরা-শামসুন্নাহাররা। সহজেই হংকংকে ৬-০ গোলে হারিয়েছে ছোটনের শিষ্যরা। স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে প্রথমার্ধে ৩-০ গোলে এগিয়েছিল বাংলাদেশ।

আগের ম্যাচে ইরানের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করা স্ট্রাইকার তহুরা খাতুন এ ম্যাচেও করেছেন তিন গোল। প্রথম ম্যাচে মালয়েশিয়ার জালে ২ বার বল পাঠিয়েছেন ময়মনসিংয়ের এ কিশোরী। তিন ম্যাচে তার গোল ৮ টি, যা বাংলাদেশের মোট গোলের এক তৃতীয়াংশ।

ইরানের বিপক্ষে ২৫ সেকেন্ডে গোল করা তহুরা এ ম্যাচে দলকে এগিয়ে দেন ৪ মিনিটে। ৩৯ মিনিটে আরেক স্ট্রাইকার সাজেদা ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এবং তহুরা ৪০ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করে প্রথমার্ধে বাংলাদেশকে ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে রাখেন।

৬৭ মিনিটে শাসমুন্নাহার গোল করে ব্যবধান ৪-০ করেন। অনুচিং মগিনি ৭২ মিনিটে গোল করলে বড় জয়ের দিকে এগিয়ে যায় লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। হংকংয়ের জালে শেষবার বল পাঠিয়ে তহুরা হ্যাটট্রিক পূরণ করে ৭৪ মিনিটে।

আরআই/এমএমআর/পিআর