ভারতের দর্পচূর্ণ করে সাফ চ্যাম্পিয়ন মালদ্বীপ

রফিকুল ইসলাম
রফিকুল ইসলাম রফিকুল ইসলাম , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:০১ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ভারতকে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো সাফ সুজুকি কাপের ট্রফি জিতেছে মালদ্বীপ। শনিবার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনালে মালদ্বীপ ২-১ গোলে হারিয়েছে গতবারের চ্যাম্পিয়নদের। দুই অর্ধে দুই গোল করে টুর্নামেন্টের সবচেয়ে বড় চমকটি দেখাল টসভাগ্যে গ্রুপ পর্ব টপকানো দলটি।

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপটা ডাল-ভাত বানিয়ে ফেলেছিল ভারত। ১১ আসরে ৭ বার চ্যাম্পিয়ন হয়ে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় দেশটির আচরণেও এসেছিল পরিবর্তন। জাতীয় দলের টুর্নামেন্ট যুব দল পাঠিয়েও ২০০৯ সালে ঢাকা থেকে ট্রফি নিয়ে ঘরে ফিরেছিল তারা।

এবারও তেমনটি আশা করেছিল ভারত অনূর্ধ্ব-২৩ দল পাঠিয়ে। দলটির ইংলিশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যানটাইন টুর্নামেন্টের নিয়ম-কানুনও মানেননি। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে অফিসিয়াল সংবাদ সম্মেলনে আসেননি। সেমিফাইনালের আগে পাঠিয়েছিলেন সহকারী কোচকে।

ফাইনালপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে দম্ভ করে বলেছিলেন, তারা হারতে আসেননি। ভারতের সেই দম্ভ গুঁড়িয়ে দিয়েছে মালদ্বীপ। সাতবারের চ্যাম্পিয়ন ভারতকে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো সাফের ট্রফি জিতল দ্বীপ দেশটি।

১৯ মিনিটে মালদ্বীপ এগিয়ে যায় ইব্রাহিম হোসাইনের গোলে। পাল্টা আক্রমণ থেকে ভারতের অর্ধে ঢুকে ডিফেন্সচেরা পাস দেন নাইজ হাসান। ইব্রাহিম গতিতে ভারতীয় দুই ডিফেন্ডারকে পরাস্ত করে একটু সামনে এগিয়ে আসা গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে চমৎকার প্লেসিংয়ে বল জালে পাঠান।

৬৬ মিনিটে আরেকটি প্রতি আক্রমণে ব্যবধান দ্বিগুণ করে মালদ্বীপ। বাম দিক থেকে মোহাম্মদ হামজার ডিফেন্সচেরা পাস ধরে আগুয়ান গোলরক্ষকের পাশ দিয়ে বল ঠেলে দেন পোস্টে। ভারতের এক ডিফেন্ডার শেষ চেষ্টা করেও বল থামাতে পারেননি। ভারত ব্যবধান কমায় ইনজুরি সময়ে সুমিত পাশির গোলে।

আরআই/আইএইচএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]