জিতে প্লে-অফের আশা বাঁচিয়ে রাখলো ব্যাঙ্গালুরু

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৪০ এএম, ১৮ মে ২০১৮

জিতলেই সুযোগ থাকবে এবং হারলেই বিদায়, এমন সমীকরণকে সামনে রেখে বাঁচামরার ম্যাচে আইপিএলের এবারের আসরের শীর্ষ দল সানরাইজার্স হায়দারাবাদের মুখোমুখি হয়েছিল কোহলির ব্যাঙ্গালুরু। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে অবশেষে জয়ের মুখ দেখলেন কোহলিরা। সাকিবের হায়দরাবাদকে তারা ১৪ রানে হারায়। ফলে টিকে থাকলো ব্যাঙ্গলুরুর প্লে-অফে খেলার আশা।

ব্যাঙ্গালুরুর দেয়া ২১৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ভালোই সূচনা করেন সানরাইজার্সের দুই ওপেনিং ব্যাটসম্যান শেখর ধাওয়ান এবং এলেক্স হেলস। প্রথম পাঁচ ওভারেই বিনা উইকেট হারিয়ে ৪৭ রান তোলেন তারা। ষষ্ঠ ওভারের প্রথম বলেই জুটি ভাঙেন চাহাল। নিজের বলে নিজেই ক্যাচ নিয়ে ধাওয়ানকে বিধ্বংসী হওয়ার আগেই ফেরান তিনি। ধাওয়ানের পর বেশিক্ষণ টেকেননি ইংলিশ ব্যাটসম্যান এলেক্স হেলসও। ২৪ বলে ৩৭ রান করে আরেক ইংলিশ মঈন আলির বলে এবি ডি ভিলিয়ার্সের দুর্দান্ত ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি।

৮ ওভারে ৬৪ রানের ভেতর ২ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে হায়দারাবাদ। কিন্তু সেখান থেকে দলকে টেনে তোলার কাজ করেন কেন উলিয়ামসন এবং মানিশ পান্ডে। কলিন দি গ্র্যান্ডহোমকে ডিপ মিডউইকেটে ঠেলে দিয়েই ২৮ বলে নিজের ২৮তম আইপিএল ম্যাচে ১১তম হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন কেন উইলিয়ামসন। দুজনে মিলে ৭৭ বলে ১৩৫ রানের জুটি গড়লেও সেটি রানের তুলনায় ছিল যৎসামান্য। শেষ ওভারে ২০ রান দরকার হলে উইলিয়ামসন প্রথম বলেই আউট হন। পরবর্তী ৫ বলে মাত্র পাঁচ রান নিলে ১৪ রানের পরাজয় বরণ করে নিতে হয় হায়দারাবাদকে। মানিশ পান্ডে শেষ পর্যন্ত ৬১ রানে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে ব্যাঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ম্যাচের শুরুতে পার্থিব প্যাটেল আর বিরাট কোহলির উইকেট হারিয়ে খানিকটা বিপদেই পড়ে গিয়েছিল স্বাগতিকরা; কিন্তু তৃতীয় উইকেট জুটিতে ডি ভিলিয়ার্স আর মঈন আলি মিলে ১০৭ রানের জুটি গড়ে ব্যাঙ্গালুরুর রান নিয়ে যান ধরা-ছোঁয়ার বাইরে। ৩৯ বলে ৬৫ রানের ইনিংস খেলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। ১২টি বাউন্ডারির সঙ্গে ১টি ছক্কার মার মারেন তিনি।

ডি ভিলিয়ার্সের থেকেও বেশি বিধ্বংসী ছিলেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান মঈন আলি। ৩৪ বলে তিনি খেলেন ৬৫ রানের ইনিংস। ২টি বাউন্ডারির সঙ্গে তিনি মারেন ৬টি ছক্কার মার। শেষ দিকে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের ১৭ বলে ৪০ এবং সরফরাজ খানের মাত্র ৮ বলে ২২ রান দুইশোর কোটা পার করায় ব্যাঙ্গালুরুকে।

শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেট হারিয়ে ব্যাঙ্গালুরুর সংগ্রহ দাঁড়ায় ২১৮ রান। সাকিব আল হাসান ৪ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। রশিদ খান ২৭ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। ব্যাঙ্গালুরু তাদের শেষ ম্যাচ খেলবে প্লে-অফের স্বপ্নে বিভোর আরেক দল রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে।

আরআর/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :