গুলশান-বনানী আর নবাবগঞ্জের মার্কেটের মধ্যে পার্থক্য নেই: পলক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪৬ এএম, ১০ অক্টোবর ২০২১

ঢাকার গুলশান-বনানী আর নবাবগঞ্জের বাজার, মার্কেট, শপিংমলের মধ্যে তেমন কোনো পার্থক্য নেই বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

শনিবার (৯ অক্টোবর) ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলার আইটি বিশেষজ্ঞ ও উদ্যোক্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

পলক বলেন, এ শহর (নবাবগঞ্জ ও দোহার) এবং গ্রামের পার্থক্য দূর করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ ১২ বছরের মধ্যে একটা দরিদ্র রাষ্ট্র থেকে আয়ের সমৃদ্ধশালী-মর্যাদাশীল দেশে পরিণত করেছেন তিনি।’

তিনি বলেন, আজকে নবাবগঞ্জের প্রতিটি বাড়ি বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত, এখানে ফ্রিল্যান্সাররা উচ্চ গতির ইন্টারনেট চায়, শিক্ষকরা আরও বেশি কম্পিউটার ল্যাব চায়। আমাদের জনপ্রতিনিধিদের দাবি হলো— এখানে যেন আরও আধুনিক প্রযুক্তিতে বিনিয়োগ আসে। তার জন্য তারা হাইটেকপার্ক এবং শেখ কামাল আইটি ইনকিউবেশন সেন্টার চায়। অথচ ১২ বছর আগে এ এলাকার মানুষর দাবি ছিল বিদ্যুতের সংযোগ, রাস্তার মেরামত এবং কাঁচা রাস্তা পাকাকরণ। এ দাবিগুলো প্রধানমন্ত্রী পূরণ করেছেন বলেই কিন্তু উন্নত জীবন-যাপনের জন্য নতুন নতুন দাবি উত্থাপন আজকে হচ্ছে।’

ঢাকার নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলার আইটি বিশেষজ্ঞ ও উদ্যোক্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। একই সঙ্গে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ইনফো সরকার-৩ প্রকল্পের আওতায় নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলায় ২২টি ইউনিয়নে কানেক্টিভিটি উদ্বোধন বিষয়ক একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এমআইএস/এমএএইচ/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]