জবি ভর্তি : হটলাইনে সেবা না পাওয়ার অভিযোগ

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ১২:২৫ এএম, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭
জবি ভর্তি : হটলাইনে সেবা না পাওয়ার অভিযোগ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) অনার্স প্রথম বর্ষ ভর্তি সংক্রান্ত বিষয়ে সেবা পাওয়ার জন্য হটলাইনের নম্বরে সেবা না পাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার দুপুরে একাধিক ভুক্তভোগী পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবক অভিযোগ করেছেন যে, তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে দেয়া মোবাইল নম্বরে ফোন দিয়ে তারা কোনো ধরনের সেবা পাননি।

তারা অভিযোগ করে বলেন, হটলাইন নম্বরে ফোন দিলে হয়ত কখনো বন্ধ, কখনো ফোন কেটে দেয়া কিংবা অটো ব্যস্ত দেখাচ্ছে।

‘ই’ ইউনিটের এক পরীক্ষার্থী লক্ষ্মীপুর থেকে মঙ্গলবার সকালে জবি ক্যাম্পাসে এসে তার সমস্যার সমাধান করেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, অমার যে সমস্যা ছিল তা ফোন দিলেই সমাধান হয়ে যেতো। কিন্তু অনলাইনে যে হটলাইনের নম্বর দেয়া আছে সেটাতে গত দুইদিন ধরে ফোন দিলেও ফোন রিসিভ হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে আজ আমাকে আসতে হয়েছে।

রংপুর থেকে আসা ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষার্থীর বাবা বায়জীদ আলম জানান, তার ছেলের এডমিট কার্ড আসছিল না। ‘এপ্লিকেশন ইনকম্লিট দেখাচ্ছিল। কেন এমনটি দেখাচ্ছিল তা জানার জন্য হটলাইনের নম্বরে অনেকবার ফোন দিলেও কোনো রেসপন্স পাওয়া যায়নি। তাই আজ নিজেই সশরীরে এসেছেন।

সমস্যার সমাধান হলো কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, রেজিস্ট্রার অফিস থেকে প্রথমে সহকারী রেজিস্ট্রার মশিরুল ইসলামের কাছে যাই। পরে রেজিসট্রার অফিসের সেকশন অফিসার হেদায়েতুল্লাহ তুর্কির রুমে গেলেও কোনো সমাধান হয়নি। যিনি নাকি এটা দেখবেন, তিনি সন্ধ্যায় আসবেন। তাই সন্ধ্যার পর যোগাযোগ করতে বলেছেন।

আরও কয়েকজন পরীক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ভর্তি সংক্রান্ত কাজে সশরীরে এসেও তারা রেজিস্ট্রার অফিস থেকে আশানুরূপ সেবা পাচ্ছেন না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সহকারী রেজিস্ট্রার মশিরুল ইসলাম বলেন, আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করছি সেবা দেয়ার জন্য। হটলাইনে সবসময় সেবা দেয়া সম্ভব না। হটলাইন নম্বর বন্ধ থাকা, ফোন কেটে দেয়া বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি রেজিস্ট্রারের সঙ্গে কথা বলতে বলেন।

বুধবার দুপুরে এ বিষয়ে জানতে চাইলে রেজিস্ট্রার অফিসের সেকশন অফিসার হেদায়েতুল্লাহ তুর্কি জাগো নিউজকে বলেন, আমাদের হটলাইনে সেবা পাচ্ছে না এটা ভুল কথা। অনেকে চেষ্টা করছে কথা বলার জন্য, তাই হয়ত এ সমস্যা হচ্ছে।

ফোন বন্ধ থাকা কিংবা কেটে দেয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের তো রিসিভ করার সময় নাই কাটব কখন।

এসএম/জেডএ