সুন্দরবনের বাঘকে পিটিয়ে হত্যা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি বাগেরহাট
প্রকাশিত: ১২:৫৮ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০১৮
সুন্দরবনের বাঘকে পিটিয়ে হত্যা

বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর স্টেশনের ঘুলিষাখালী এলাকায় খাদ্যের সন্ধ্যানে লোকালয়ে আসা সুন্দরবনের একটি বাঘকে পিটিয়ে হত্যা করেছে গ্রামবাসী। এ সময় বাঘের আক্রমণে ছয় গ্রামবাসী আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার ভোরে ক্ষুধার্ত রয়েল বেঙ্গল টাইগারটি বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার গুলিশাখালী গ্রামে একটি মৎস্য ঘেরে ঢুকে দুই ব্যক্তির ওপর আক্রমণ করে। এ সময়ে আতঙ্কিত গ্রামবাসী মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে লাঠি সোটা নিয়ে বাঘটিকে ঘিরে ফেলে। পরে গ্রামবাসীর এলোপাতাড়ি পিটুনিতে বাঘটি মারা যায়।

খবর পেয়ে ভিলেজ টাইগার রেসপন্স কমিটির (ভিটিআরটি) কর্মী বারেক হাওলাদার, মামুন, নাছির, আমজাদ ও রুম্মান নিহত বাঘটিকে উদ্ধার করে নিশানবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যান। পরে গুলিশাখালী ফরেস্ট স্টেশন কর্মকর্তা শেখ খায়রুল ইসলাম ঘটনাস্থলে পৌঁছে সাড়ে ছয় ফুট লম্বা বাঘটির মরদেহ জিউধরা ফরেস্ট ক্যাম্পে নিয়ে যান।

বাঘটির মরদেহ উদ্ধারকারী ভিটিআরটি সদস্য বারেক হাওলাদার বলেন, ভোররাতে ক্ষুধার্ত এই বাঘ খাবারের সন্ধানে লোকালেয়ে ঢুকে কয়েকজনকে আক্রমণ করে। এতে গুলিশাখালী গ্রামের ছাব্বির সরদার (২২), আলামীন গাজী (২৫), ছরোয়ার হোসেন দলালের মাসুম দলাল (৩০) ও ভিটিআরটি সদস্য মজিবর সরদার আহত হন।

বাঘের আক্রমণে গুরুতর আহতদের মধ্যে গুলিশাখালী গ্রামের টুকু দালালের ছেলে মাসুম দালালের (৩০) নাম জানা গেছে। আহতদের মধ্যে দুইজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

বাগেরহাট পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. মাহমুদুল হাসান বলেন, বন সংলগ্ন ঘুলিষাখালী গ্রামে সোমবার রাতে একটি বাঘ ঢুকে পড়ে। এরপর ওই বাঘটি মঙ্গলবার সকালে গ্রামের লোকজনের ওপর হামলা করলে এতে দুইজন আহত হন। পরে গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে বাঘটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলে। এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে।

মাহমুদুল হাসান আরও বলেন, সুন্দরবন সংলগ্ন মোংলার বৈদ্যমারী, কাটাখালী, বুড়বুড়িয়া ও ঘুলিষাখালী এলাকায় বাঘের আনাগোনা বেড়ে গেছে। মাঝে মাঝে বাঘ এ সব এলাকায় ঢুকে পড়ছে।

শওকত বাবু/আরএআর/জেআইএম