নারায়ণগঞ্জে বিএনপির ৪৫০ নেতাকর্মীর নামে মামলা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৮:০৮ পিএম, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ মিছিলে বাধা দিতে গেলে পুলিশের ওপর হামলাসহ ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় মামলা হয়েছে।

নাশকতায় ঘটনায় পৃথকভাবে পুলিশ বাদী হয়ে তিন থানায় ৪টি মামলা করেছে। এতে করে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের ৪৫০ নেতাকর্মীকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়। আর এ মামলায় রূপগঞ্জ কাঞ্চন পৌরসভার মেয়রসহ ২৬ জন বিএনপির নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গতকাল রোববার বিকেলে পুলিশ বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ, রূপগঞ্জ ও সোনারগাঁ থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

এদিকে পুলিশের গ্রেফতার অভিযানে জেলার বিভিন্ন এলাকার বিএনপিসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। বিএনপির নেতাকর্মীরা আত্মগোপনে চলে গেছে। আর পুলিশও বিএনপির নেতাকর্মীদের তালিকা তৈরি করে বাড়িতে গিয়ে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

মামলার বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে গত ৩ ফেব্রুয়ারি শনিবার পৃথকভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলার বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ বাধা দিতে গেলে ইটপাটকেল নিক্ষেপসহ হামলার ঘটনা ঘটে। এমনকি পুলিশকে লক্ষ্য কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণও ঘটায়। এতে কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়।

এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় দুটি মামলা দায়ের করা হয়। একটি মামলার বাদী হলো এসআই মুজিবুর রহমান ও এএসআই এনামুল হক। আর রূপগঞ্জ থানার দায়েরকৃত মামলার বাদী হলেন এসআই সাব্বির এবং সিদ্ধিরগঞ্জ থানার বাদী হলেন (এসআই) রফিকুল ইসলাম।

সোনারগা থানার দুটি মামলায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবু জাফর, উপজেলার চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম মান্নানসহ ১৫০ জনকে আসামি করা হয়। আর এ মামলায় ১০ নেতাকর্মীকে এ দুই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

আর সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় বিএনপির সাবেক এমপির দুই ছেলেসহ ১০ জনসহ ১৫০ জন আসামি করা হয়েছে। এছাড়া দু’জন সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলরও রয়েছে।

এ মামলায় একজন বিএনপি নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রূপগঞ্জ থানায় দায়েরকৃত মামলায় জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান মনি ও পৌরসভার মেয়রসহ ১২৫ জনকে আসামি করা হয়। আর মেয়রসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার পরিদর্শক (ডিএসবি) সরাফত উল্লাহ এসব বিষয়ের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

শাহাদাত হোসেন/এমএএস/আইআই

আপনার মতামত লিখুন :