এক আসনেই আ.লীগের ১৪ প্রার্থী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ০৯:০৪ পিএম, ১০ নভেম্বর ২০১৮

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লক্ষ্মীপুর-২ (রায়পুর ও সদরের একাংশ) আসনে আওয়ামী লীগের শক্ত কোনো মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন না। নিয়ম রক্ষার দুই-তিনজন প্রার্থী থাকলেও তারা তখন গা ছাড়া মনোভাব নিয়ে ছিলেন। পরে দল থেকে এহাসানুল কবির জগলুলকে মনোনয়ন দেয়া হয়।

আওয়ামী লীগ জোটগত কারণে জাতীয় পার্টিকে আসনটি ছেড়ে দিলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মোহাম্মদ নোমান (জাতীয় পার্টি) নির্বাচিত হন। কিন্তু এবার ভিন্ন চিত্র। ওই আসনেই একাদশ সংসদ নির্বাচনে শনিবার (১০ নভেম্বর) সন্ধ্যা পর্যন্ত ১৪ জন প্রার্থী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। এবার যেন নতুন মুখের ছড়াছড়ি। একই অবস্থা অন্য আসনগুলোতেও।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, লক্ষ্মীপুরে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা নেতাদের মধ্যে নতুন মুখই বেশি। শনিবার বিকেল পর্যন্ত জেলার চারটি সংসদীয় আসনে ৩১ জন প্রার্থী দলীয় মনোনয়নয়পত্র সংগ্রহ করেছেন। বিগত সংসদ নির্বাচনগুলোতে এর সংখ্যা প্রায় অর্ধেক ছিল। এর সংখ্যা আরও বাড়বে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শনিবার বিকেল পর্যন্ত লক্ষ্মীপুর-১ (রামগঞ্জ) আসনে মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোজাম্মেল হক মিলন, রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সফিক মাহমুদ পিন্টু, সহ-সভাপতি শামছুল ইসলাম মিজান, সদস্য মাইন উদ্দিন মাইনু, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক এম এ মমিন পাটওয়ারী ও জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সদস্য দেওয়ান সুলতান আহমেদ।

লক্ষ্মীপুর-২ (রায়পুর ও সদরের একাংশ) আসনে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক হারুনুর রশিদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুরুল হুদা পাটওয়ারী, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক এহসানুল কবির জগলুল, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ আলী খোকন, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য শামছুল ইসলাম পাটওয়ারী, আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কাশেম, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রফিকুল হায়দার বাবুল পাঠান, এনআরবি ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট শহিদ ইসলাম পাপুল ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সালাহ উদ্দিন রিগ্যানসহ ১৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

লক্ষ্মীপুর-৩ (সদর) আসনে মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু, ঢাকার মোহাম্মদপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ সাত্তার, সজিব গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ হাসেম, জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম চৌধুরী ও কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা বদরুল আলম শ্যামল।

লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি ও কমলনগর) আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য মো. আবদুল্লাহ, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক আবদুজ্জাহের সাজু, কমলনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামছুল কবির মনোননয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

জানতে চাইলে লক্ষ্মীপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মিজানুর রহমান বলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের মনোনয়ন সংগ্রহ করার প্রতিযোগিতা গণতন্ত্রেও সৌন্দর্য। সবাই দলের প্রার্থী। শেখ হাসিনা যাকেই চূড়ান্ত মনোনয়ন দেবেন প্রার্থীরা সবাই মিলে তার পক্ষেই কাজ করবেন।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও লক্ষ্মীপুর-৩ (সদর) আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী গোলাম ফারুক পিংকু বলেন, আওয়ামী লীগ বড় গণতান্ত্রিক দল। এখানে মনোনয়নে প্রতিযোগিতা থাকবে। সিনিয়রদের পাশাপাশি অনেক নতুন মুখও এবার মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

কাজল কায়েস/আরএআর/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :