মালয়েশিয়া যেতে বগুড়ায় রোহিঙ্গা তরুণী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ০৪:১৩ পিএম, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৮

তিনদিন ধরে বগুড়া সদর থানা হেফাজতে জাহিদা বেগম (১৯) নামে এক রোহিঙ্গা তরুণী। বগুড়া পাসপোর্ট অফিসে পাসপোর্ট করতে এসে তিনি ধরা পড়েন। পরে তাকে থানায় সোপর্দ করা হয়।

জাহিদা বেগমের বাড়ি মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মন্ডু থানার গড়াখালী পাড়ায়।

বগুড়া সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম বদিউজ্জামান বিষয়টি স্বীকার করে জানান, শনিবার (আজ) রাতে তাকে কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাঠানো হবে।

থানা সূত্রে জানা যায়, মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রলোভন দিয়ে দালালদের একটি চক্র গত বুধবার জাহিদা বেগমকে কক্সবাজারের আশ্রয় শিবির থেকে বগুড়া পাসপোর্ট অফিসে নিয়ে আসে। সেখানে তিনি নিজেকে বাংলাদেশি পরিচয় দিয়ে পাসপোর্ট করার জন্য কাগজপত্র দাখিল করেন।

কিন্তু তার অসংলগ্ন কথাবার্তায় রোহিঙ্গা বলে সন্দেহ হলে পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তারা থানায় খবর দেন। পরে তাকে থানা হেফাজতে নেয়া হয়। থানায় আসার পরও পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে গত দু’দিন তিনি তার নাম-পরিচয় দেননি। জেরার একপর্যায়ে শুক্রবার রাতে নাম-পরিচয় জানিয়ে দালালদের কবলে পড়ার কথা জানান ওই তরুণী।

জাহিদা বেগম জানান, রাখাইনে পুলিশ ও সেনা অভিযানের সময় তাদের বাড়িতে আগুন দেয়া হয়। সেনারা তার পরিবারের অনেককে গুলি করে হত্যা করেছে। এরপর প্রাণ ভয়ে মাসহ পরিবারের অন্যান্যদের সঙ্গে বাংলাদেশের কক্সবাজারে পালিয়ে আসেন তারা। সেই থেকে তিনি কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্পেই ছিলেন। দালালরা তাকে মালয়েশিয়া পাঠানোর কথা বলে বগুড়া এনেছেন।

লিমন বাসার/আরএআর/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :