বাংলাদেশি যুবকের ১০টি নখ উপড়ে ফেলল বিএসএফ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ
প্রকাশিত: ০৩:৪৬ পিএম, ২৭ এপ্রিল ২০১৯

নওগাঁর সাপাহার সীমান্তে আজিম উদ্দীন (২৮) নামে এক বাংলাদেশি যুবকের হাতের সব আঙুলের নখ উপড়ে ফেলে অমানবিক নির্যাতন চালিয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। শনিবার ভোরে উপজেলার পাতাড়ী সীমান্তের ভারতের রাঙ্গামাটি ৬০ বিএসএফ জোয়ানরা এ নির্মম নির্যাতন চালিয়েছে।

নির্যাতনের শিকার আজিম উদ্দীন উপজেলার দক্ষিণ পাতাড়ী (তুলশী ডাঙ্গা) গ্রামের কাবির উদ্দীনের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার রাতে কয়েকজন গরু ব্যবসায়ীর সঙ্গে অবৈধভাবে ভারতে গরু আনতে যান যুবক আজিম উদ্দীন। শনিবার ভোরে গরু নিয়ে তারা সীমান্তের ২৪২ আরএস পিলার এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা করছিলেন। এ সময় ভারতের বামন গোলা থানার রাঙ্গামাটি ক্যাম্পের ৬০ বিএসএফের টহলরত জোয়ানরা বিষয়টি বুঝতে পেরে তাদের ধাওয়া করে। এ সময় অন্যরা গরু রেখে পালিয়ে আসতে সক্ষম হলেও আজিম উদ্দীন বিএসএফের হাতে ধরা পড়ে।

পরে বিএসএফ সদস্যরা আজিম উদ্দীনের দুই হাতের ১০টি আঙ্গুলের নখ উপড়ে ফেলে এবং শারীরিক নির্যাতন করে। বিএসএফের অমানুষিক নির্যাতনে আজিম উদ্দীন অজ্ঞান হয়ে গেলে তারা সীমান্তবর্তী পুর্ণভবা নদীর জিরো পয়েন্টে তাকে ফেলে রেখে চলে যায়। শনিবার সকাল ৬টার দিকে আদাতলা বিজিবি-১৬ এর একটি টহল দল ওই এলাকায় গেলে আজিম উদ্দীনকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে তাকে ক্যাম্পে নিয়ে আসে। এরপর সকাল ১০টার দিকে বিজিবি সদ্যসরা তাকে সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। বর্তমানে আজিম উদ্দীন সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আজিম উদ্দীন বলেন, বিএসএফ সদস্যরা আমাকে ধরে নিয়ে অমানুষিক নির্যাতন চালিয়েছে। তাদের নির্যাতনে আমি অজ্ঞান হয়ে যাই।

নওগাঁ বিজিবি-১৬ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল তুহিন মোহাম্মাদ মাসুদ বলেন, আজিম উদ্দীন একজন গরু চোরাকারবারী দলের সদস্য বলেই আমরা জেনেছি। সে অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করলে সেখানকার কিছু এজেন্সি তাকে আটক করে। পরবর্তীতে শনিবার সকালে আমরা তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার কর সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তাকে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। আজিম উদ্দীনের সঙ্গে যারা অবৈধভাবে ভারতে গিয়েছিল তাদের ব্যাপারেও খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে।

আব্বাস আলী/আরএআর/এমএস