বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষিকাকে গালিগালাজ, ছাত্রলীগ নেতা কারাগারে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি জয়পুরহাট
প্রকাশিত: ০৭:২৯ পিএম, ১০ অক্টোবর ২০১৯

বিদ্যালয়ে ঢুকে প্রধান শিক্ষিকাকে অশ্লীলভাষায় গালিগালাজ এবং হুমকি দেয়ায় জয়পুরহাটে রোম্মান হোসেন (২৫) নামে এক ছাত্রলীগ নেতাকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। সে আক্কেলপুর উপজেলার গোপীনাথপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি এবং ভিকনী গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আক্কেলপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক মো. জাকিউল ইসলাম ওই দণ্ডাদেশ দেন। পরে পুলিশ তাকে জয়পুরহাট জেল হাজতে পাঠায়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত ও বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকালে ভিকনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ক্লাস চলাকালীন ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি রোম্মান হোসেন বিদ্যালয়ে ঢুকে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাসুদা খানমকে অশ্লীলভাষায় গালিগালাজ এবং হুমকি দেয়। এ সময় প্রধান শিক্ষিকা মাসুদা খানম ঘটনাটি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামকে জানান। শিক্ষা কর্মকর্তা সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাটি ইউএনওকে জানালে তিনি পুলিশ নিয়ে ওই বিদ্যালয়ে উপস্থিত হন। এরপর রোম্মানকে আটক করে নিজের কার্যালয়ে নিয়ে আসেন। সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে সরকারি কাজে বাঁধা দেয়ার অপরাধে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

প্রধান শিক্ষিকা মাসুদা খানম বলেন, ছাত্রলীগ নেতা রোম্মান দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ের ভেতরে এসে আমাকে এবং অন্য শিক্ষকদের হুমকি ধামকি দিত। এমনকি অশ্লীলভাষায় গালিগালাজও করত। আমি বিষয়টি তখন কাউকে বলিনি। আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে বিদ্যালয়ে ঢুকে সরকারি কাজে বাধা দেয়া ও পড়াশোনার ব্যাঘাত ঘটানোসহ আমাকে খুবই অশ্লীলভাষায় গালিগালাজ এবং বিভিন্ন হুমকি দেয়। বিষয়টি আমি ঘটনাটি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানালে ইউএনও বিদ্যালয়ে এসে রোম্মানকে আটক করে নিয়ে যান। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাকে এক মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

তিনি আরও বলেন, রোম্মান আমারই ছাত্র ছিল। আমি এটা কখনই করতে চাইনি। কিন্তু তার ব্যবহারে অতিষ্ঠ হয়ে আজ এই কাজ করতে বাধ্য হয়েছি।

ইউএনও মো.জাকিউল ইসলাম বলেন, ছাত্রলীগ নেতা রোম্মান দীর্ঘদিন যাবত বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অশ্লীলভাষায় গালাগালি, শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার ব্যাঘাত ঘটানো ও সরকারি কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগ শিক্ষকদের কাছ থেকে পাওয়ার পর বিদ্যালয়ে যায় এবং তাকে আটক করে নিয়ে আসি, এ ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় তাকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। যাতে করে কোনো নেতা বা ব্যক্তি শিক্ষকদের সঙ্গে এই রকম কাজ করতে সাহস যেন না পায়।

আক্কেলপুর উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক খাদেমুল ইসলাম রোম্মানের দলীয় পদবীর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি অভিযোগ করেন, রোম্মান ষড়যন্ত্রের শিকার, তাকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বিদ্যালয়টি রোম্মানের বাড়ির পাশে। সেখানে তার চাচাতো ভাই-বোন লেখাপড়া করে, প্রায়ই বিদ্যালয়ে টিফিনের পর আর কোনো ক্লাস হয় না- এ বিষয়ে রোম্মান বিদ্যালয়ের সভাপতি ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পলাশ মাস্টার ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে মৌখিকভাবে বিষয়টি জানিয়েছিল। এ কারণে তার বিরুদ্ধে এই ষড়যন্ত্র করা হয়েছে।

রাশেদুজ্জামান/এমএমজেড/এমকেএইচ